বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৮:০৫ পূর্বাহ্ন

আঁশযুক্ত চার খাবারে ডায়বেটিস থাকবে নিয়ন্ত্রণে

আঁশযুক্ত চার খাবারে ডায়বেটিস থাকবে নিয়ন্ত্রণে

নিউজটি শেয়ার করুন

লাইফস্টাইল ডেস্ক :ডায়বেটিস বা বহুমূত্র রোগ আমাদের প্রত্যেকের পরিচিত একটি রোগের নাম।

আমাদের দেশে এমন পরিবার খুব কমই আছে, যেখানে কোন ডায়বেটিসের রোগী নাই। ডায়বেটিসে আক্রান্ত হওয়ার নির্দিষ্ট কোন বয়স না থাকলেও বৃদ্ধ বয়সে বা বয়স পঞ্চাশ পেরোলে এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা বৃদ্ধি পায়।

ইন্টারন্যাশনাল ডায়বেটিস ফাউন্ডেশনের হিসেব অনুযায়ী বর্তমানে বাংলাদেশে ডায়বেটিস আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় ৭০ লক্ষ।

জাতীয় জনসংখ্যা গবেষণা এবং প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউটের তথ্যমতে, বাংলাদেশে যারা ডায়বেটিসের চিকিৎসা নেন তাদের মধ্যে শতকরা প্রায় ৭২ শতাংশ রোগী ট্যাবলেট খান এবং প্রায় ১৭ শতাংশ ইনসুলিন নেন। বাকি ১১ শতাংশ রোগীর ক্ষেত্রে দুটোই প্রয়োজন হয়।

এতো কিছুর পরেও ডায়বেটিসে আক্রান্ত প্রতিটি মানুষের আলাদা কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয় তাদের ইন্স্যুলিনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য। যার মাঝে আছে নিয়ম মেনে হাঁটা ও সচেতনতার সঙ্গে খাবার নির্বাচন করা। খাবারের বিষয়ে সচেতন না হলে, ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। যে কারণে বিশেষজ্ঞরা ডায়বেটিস রোগীদের আঁশযুক্ত সবুজ ফল ও সবজি খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

এই ফিচারে আঁশযুক্ত কিছু খাদ্য উপাদান সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক, যা ডায়বেটিসকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে কাজ করবে।
মিষ্টি আলু

সচরাচর আলু ডায়েটের জন্য আদর্শ খাবার না হলেও, মিষ্টি আলুতে শর্করা কম থাকায় এটি ডায়বেটিস রোগীদের ডায়েটের জন্য বেশ উপকারী। মিষ্টি আলুতে শর্করা গ্লাইসিমিক ইনডেক্স ৫০ এর নীচে। গ্লাইসিমিক ইনডেক্স হচ্ছে শর্করার উপস্থিতি পরিমাপক।
পালংশাক

আঁশযুক্ত সবুজ শাকটি শুধু ডায়বেটিস রোগীদের জন্যে নয়, সবার জন্য উপকারী। গ্লাইসিমিক ইনডেক্স ১৫ এর নীচে শর্করাযুক্ত এই শাকটি ওজন নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। বিশেষত ডায়বেটিসের রোগীদের জন্য ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকা খুবই জরুরী।
করলা

তিতকুটে এই সবজির গুণাগুণ ডায়বেটিস রোগীদের জন্য উপকারী। করলাতে আছে এমন উপাদান যা রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ বাড়তে দেয়না। এছাড়া করলাতে থাকা পলিপেপটাইড-পি বা পি-ইন্সুলিনের মত উপাদান শরীরে ইন্সুলিনের কাজ করে।
কমলালেবু

আঁশ জাতীয় লেবুবর্গের প্রতিটি ফলই ডায়বেটিস রোগীদের জন্য উপকারী। সেক্ষেত্রে কমলালেবুর রসের চাইতে আস্ত ফলটি খাওয়াই বেশী উপকারী বলে অভিহিত করেন বিশেষজ্ঞরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ