সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯, ১১:০৩ অপরাহ্ন

আখালিয়ায় শিশুর গালে ছুরিকাঘাত মামলার আসামি জেলহাজতে

আখালিয়ায় শিশুর গালে ছুরিকাঘাত মামলার আসামি জেলহাজতে

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত সিলেট : নগরীর আখালিয়ায় শিশুর গালে ছুরিকাঘাত মামলার আসামি আজাদ মিয়াকে (৫৫) জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বুধবার বেলা ৩টায় সিলেটের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট প্রথম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় আদালতের বিচারক জিয়াদুর রহমান তাকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় নগরীর বাগবাড়ির বর্ণমালা পয়েন্টে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে কোতোয়ালি পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত মো. আজাদ মিয়া সিলেট সদর উপজেলার জালালাবাদ থানার এলাকার করিমগঞ্জ বাজার সৈয়দপুরের মৃত জমসেদ আলীর ছেলে। বর্তমানে তিনি নগরীর সুবিদবাজারের নুরানী আবাসিক এলাকার টাইটানিক টাওয়ারের বাসিন্দা। বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেল বাংলাভিশনের সিলেট অফিসের ক্যামেরাপার্সন বদরুর রহমান বাবরের মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

কোতোয়ালি থানার এসআই ইবাদুল্লাহ বলেন, গত সোমবার রাতে আদালতের নির্দেশে সাংবাদিক বদরুর রহমান বাবরের মামলা রেকর্ড করা হয়। এ মামলার আসামি হিসেবে আজাদ মিয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার আজাদ মিয়াকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, সাংবাদিক বাবরের বোন আয়শা খানম ডেইজি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী। তিনি যাওয়ার আগে তার নামে থাকা সম্পত্তি দেখাশোনার দায়িত্ব দেন তাকে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে আজাদ মিয়া। গত ২২ মার্চ আজাদ মিয়া সাংবাদিক বাবরের নয়াসড়কের বাসায় গিয়ে ২৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দিলে নগরীর সুরমা আবাসিক এলাকা আয়শা খানম ডেইজির মালিকানাধীন বাসা দখলের হুমকি দেয়। এর তিনদিন পর ২৬ মার্চ সকাল ৮টায় আজাদ মিয়া ও তার ছেলে ইফতেখার আহমদ জুম্মানের নেতৃত্বে ৮/১০ জন লোক প্রবাসী আয়শা খানম ডেইজির মালিকানাধীন সুরমা আবাসিক এলাকার বি ব্লকের ২ নং রোডের ২১ নং বাসায় গিয়ে ভাড়াটেদের বাসা ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। এ সময় এক ভাড়াটের গলায় ছুরি ধরে মারধোর করে। হামলাকারীদের ছুরিকাঘাতে কেয়ারটেকার নেহার বেগমের নাতি মুরাদ আহমদকে (১৪) হত্যার উদ্দেশ্যে ছুরি চালালে তার গালে ছুরিকাঘাত লাগে। এ সময় স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় সাংবাদিক বাবর গত ৩১ মার্চ সিলেটের অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সিআর ৫১৩/২০১৯ দায়ের করেন। আদালত এফআইর গণ্যে মামলার নির্দেশ দেন। আদালতের নির্দেশে ১ এপ্রিল মামলা (নং- ০১(০৪)১৯) রেকর্ড করে কোতোয়ালি থানা।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ