শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯, ০৭:১৮ অপরাহ্ন

আনুষ্ঠানিকভাবে ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিলেন কাদের সিদ্দিকী

আনুষ্ঠানিকভাবে ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিলেন কাদের সিদ্দিকী

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক : ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগ দিয়েছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী।

সোমবার (৫ নভেম্বর) মতিঝিলে কাদের সিদ্দিকীর রাজনৈতিক কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি ঐক্যফ্রন্টের যোগ দেওয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন।

পরে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘যোগ দেওয়ার মধ্য দিয়ে লড়াই, সংগ্রামের মাত্রা বেড়ে গেল। সমস্ত মেধা শক্তি দিয়ে জনগণের ভোটাধিকার ও মুক্তির জন্য কাজ করব। বর্তমানে স্বৈরাচারের ভূমিকায় যারা আছেন তাদেরকে হটাতে পারব।’

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, সুলতান মোহাম্মাদ মনসুর, অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, অ্যাডভোকেট জগলুল আফ্রিদ, বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু, মোহাম্মাদ শাহজাহান। অনুষ্ঠানে ড. কামাল হোসেনের উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও অসুস্থতার কারণে তিনি আসতে পারেননি।

কাদের সিদ্দিকী আরো বলেন, ‘এক সময় আমার দুরবস্থা ছিল। আমার জন্য শেখ হাসিনা পাত্রী খুঁজেছিলেন। তিনি এখনও আমার পাশে আছেন। আমার এমন লড়াই সংগ্রাম কেউ দাবিয়ে রাখতে পারবে না।’

শেখ হাসিনা দেশ পরিচালনা করেন বলেই দেশের আজ পরিস্থিতি আজ অন্যরকম উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ অনেক দিন পরে হলেও বিরোধীদলগুলোকে তিনি ডেকে আলোচনা করছেন। সেজন্য তাকে ধন্যবাদ জানাই। আলোচনায় যখন বসা শুরু হয়েছে তখন থেকেই দেশের পরিস্থিতি ভালো হয়েছে’ বলেন কাদের সিদ্দিকী।

এক প্রসঙ্গে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘৩ নভেম্বর অনুষ্ঠানে বি চৌধুরীর যোগ দেওয়ার কথা থাকলেও তিনি যোগ দেননি। কারণ তিনি ড. কামালকে সহ্য করতে পারেন না। তিনি ও তার দল দাম্ভিকতার সাথে এগুচ্ছে। মাহি বি চৌধুরীর সংসদে আসার দরকার নেই। কারণ দেশবাসী তাকে চায় না।’

আ স ম আব্দুর রব বলেন, ‘চলমান লড়াই গণতন্ত্র ও ভোটের অধিকার ফিরিয়ে আসার লড়াই। প্রধানমন্ত্রী আমাদের দাবি আমলে না নিলে তিনি রেহাই পাবেন না। প্রধানমন্ত্রীর পায়ের নিচে মাটি নেই। এ জন্য ভোট চুরি বা জালিয়াতির জন্য ইভিএম পদ্ধতি চালু করতে যাচ্ছেন তিনি।’

প্রধানমন্ত্রীকে হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের দাবি মেনে নেন। দেশকে রক্তাক্ত, সংঘর্ষের দিকে ঠেলে দেবেন না।’

গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মন্টু বলেন, ‘অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য প্রধানমন্ত্রী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন বলে আমরা আশা করি।’

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ