সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯, ০৫:৩৬ পূর্বাহ্ন

আলোচনা অব্যাহত থাকবে: ওবায়দুল কাদের

আলোচনা অব্যাহত থাকবে: ওবায়দুল কাদের

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক: জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, সংলাপে খোলামেলা আলোচনা হয়েছে। আলোচনা অব্যাহত থাকবে।

বৃহস্পতিবার (১ নভেম্বর) রাত ১১টায় তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, সংলাপে খোলামেলা আলোচনা হয়েছে। ড. কামাল হোসেনসহ অন্যান্য নেতারা যে যা বলতে চেয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অখণ্ড মনোবলে সবার কথা শুনেছেন। একেকজন দুইবার তিনবার বক্তব্য শুনেছেন, কেউ বাধা দেয়নি। আমাদের নেতারাও বক্তব্য রেখেছেন। তারা কিছু অভিযোগ করেছেন, তার প্রেক্ষিতে আমাদেরও বলার ছিল- আমরা আমাদের বক্তব্য তুলে ধরেছি।

তিনি বলেন, অনেক বিষয়ে আমরা একমত হয়েছি। প্রধানমন্ত্রী পরিষ্কার করে বলে দিয়েছেন, সভা-সমাবেশ, মত প্রকাশ স্বাধীনতা রয়েছে। কিন্তু রাস্তা বন্ধ না করে, কোনো একটা মাঠে- তাদের বলা হয়েছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে তাদের জন্য একটি কর্নার করে দেওয়া হবে।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, বিদেশি পর্যবেক্ষক আসবে, সে ক্ষেত্রে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। আমাদের সমর্থন থাকবে।

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলার প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, কেয়ারটেকার সরকারের সময় এই মামলাগুলো দেওয়া হয়েছিল। কেয়ারটেকার সরকারে যারা ছিল তারা তো বিএনপির লোক ছিল। এ বিষয়ে আমাদের বলার বা করার কী আছে। এই মামলাগুলোর বিষয়ে আদালতেই ভালো বুঝবে।

আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক শ. ম. রেজাউল বলেছেন, অন্তরবর্তীকালীন সরকার বিষয়ে যে আলোচনা উঠে এসেছে, সে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন- সংবিধানে যেটা আছে এর বাইরে গিয়ে কিছু করার আইনগত অবস্থান আমার নেই। আলোচনা ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার ইলেকশান বিষয়ে প্রশ্ন উঠলে শেখ হাসিনা বলেন, নির্বাচনে এসে দেখেন ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার ইলেকশান হয় কি না। ক্ষমতায় যাওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য না।

তিনি বলেন, ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার নির্বাচনের জন্য যা যা করা দরকার আমাদের পক্ষ থেকে তা করা হবে- এ বিষয়ে বিএনপিকে নিশ্চিত করা হয়েছে। সভা-সমাবেশের সুযোগ যেভাবে আপনারা স্বস্তি বোধ করে, সেগুলো নিশ্চিত করা হবে।

তারা অনেকগুলো দাবি করেছে, বেগম খালেদা জিয়ার সাজা বাতিল, সংসদ ভেঙে দেওয়া- এই বিষয়গুলো সংবিধানসম্মত না হওয়ায় এগুলো বিবেচনা করার অবকাশ নেই সেটা তাদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাদের বলা হয়েছে, আপনাদের এই দাবিগুলো সংবিধানসম্মত নয়, তাই গ্রহণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

তারা বলেছিলেন, রাজনৈতিক হয়রানিমূলক মামলা যেন আর না হয় সেটা নিশ্চিত করতে- নিশ্চিত করে বলা হয়েছে, রাজনৈতিক হয়রানিমূলক মামলা আর হবে না। প্রধানমন্ত্রী তাদের বলেছেন, এই ধরনের মামলার লিস্ট দিলে আমরা খতিয়ে দেখব।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ