মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:৩৯ অপরাহ্ন

‘আহবায়কেই’ থমকে আছে সিলেট বিএনপির কমিটি

‘আহবায়কেই’ থমকে আছে সিলেট বিএনপির কমিটি

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক:আহবায়ক পদেই আটকে আছে সিলেট জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি। ঈদুল ফিতরের পর পরই আহবায়ক কমিটি ঘোষণার কথা থাকলেও এখন সেই কমিটি ঘোষণা হয়নি। কবে নাগাদ আহবায়ক কমিটি ঘোষণা হতে পারে তাও নিশ্চিত হতে পারছেন জেলা বিএনপির শীর্ষসারির নেতারা। শুধু বলছেন, ‘কমিটি মোটামুটি চূড়ান্ত, শিগগিরই ঘোষণা হবে।’ তবে, বিএনপির একাধিক নেতা জানিয়েছেন, আহবায়ক পদের জন্য যাদের নাম প্রস্তাব করা হয়েছিল-তাদের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে বিএনপির শীর্ষ নেতারা সন্তোষ্ট নয়। এছাড়া তাদের দু’জনের বিরুদ্ধে দলে গ্রুপিং-কোন্দেল ও বিভাজন সৃষ্টির অভিযোগ রয়েছে। তাদের পরিবর্তে দলের জ্যেষ্ট, সাংগঠনিকভাবে দক্ষ ও ত্যাগী, পরীক্ষিত একজনকে খোঁজা হচ্ছে- যাকে আহবায়ক মনোনীতি করা হবে। এ কারণেই আহবায়ক কমিটি ঘোষণা বিলম্বিত হচ্ছে।

জানা গেছে, যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে সিলেট জেলা বিএনপির কমিটি ভেঙ্গে সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠনের তোড়জোড় শুরু হয়। এলক্ষ্যে একটি আহবায়ক কমিটির প্রস্তুতি নেওয়া হয়। কেন্দ্রের নির্দেশে আহবায়ক পদের জন্য কয়েকজনের একটি তালিকাও কেন্দ্রে প্রেরণ করে জেলা বিএনপির শীর্ষস্থানীয় নেতারা।

ওই তালিকায় বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এবং জেলা ও মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি এম এ হক, জেলা বিএনপির সাবেক আহবায়ক এডভোকেট নুরুল হক, জেলা বিএনপির জ্যেষ্ট সহ সভাপতি আবুল কাহির চৌধুরী ও জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আবদুল গফ্ফারের নাম রয়েছে বলে জানিয়েছেন দলের একাধিক দায়িত্বশীল নেতা। এদের মধ্যে থেকেই একজনকে আহবায়ক করে দলীয় হাই কমান্ড জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি ঘোষণার কথা ছিল রোজার ঈদের আগেই। কিন্তু দীর্ঘদিন পরও এ কমিটি আলোরমুখ দেখেনি।

সম্প্রতি আলোচনায় এসেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য এবং একাধিকবার জেলা ও মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতির দায়িত্ব পালনকারী, সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর নাম। তাঁর নেতৃত্বেই জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি দিতে চান দলটির শীর্ষ সারির নেতাদের অনেকেই-এমন গুঞ্জণ চলছে সিলেট বিএনপি পরিবারে।

সূত্রমতে, আরিফ যাতে আহবায়ক হতে না পারেন- সেজন্য ঢাকা-লন্ডন যোগাযোগ শুরু করেছেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের এক উপদেষ্টাসহ তাঁর (আরিফ) বিরোধী বলয়ের নেতারা। আর এ কারণেই আটকে আছে জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি ঘোষণা।

বিএনপি নেতারা জানিয়েছেন, আহবায়ক কমিটি গঠনের মধ্য দিয়ে সিলেট জেলা বিএনপির বর্তমান কমিটি বিলুপ্ত হয়ে যাবে। নতুন আহবায়ক কমিটির নেতারা সিলেটে বিএনপিকে ঢেলে সাজানো শুরু করবেন। ইউনিয়ন, পৌরসভা, উপজেলা পর্যায়েও আসবে নতুন নেতৃত্ব।

এ লক্ষে সাম্প্রতি সিলেট সফর করে গেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ডা. জাহিদ হোসেন সহ অন্যরা। এর আগে সিলেট জেলা বিএনপির নেতারা ঢাকায় দলীয় কার্যালয় থেকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে বৈঠক করেন। ওই বৈঠকেও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দলকে ঢেলে সাজানোর তাগিদ সিলেটের নেতাদের দিয়েছিলেন। তারেক রহমানের নির্দেশে এই পুনর্গঠনের কাজ শুরু হচ্ছে বলে জানান তারা।

এ ব্যাপরে সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ জানান, কেন্দ্রের নির্দেশে সিনিয়র নেতাদের একটি তালিকা কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। ঈদুল ফিতরের আগেই আহবায়ক কমিটি ঘোষণার কথা ছিল। তবে, যেকোনো মুহূর্তে সিলেট জেলা বিএনপির কমিটি ভেঙে নতুন আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করবে কেন্দ্র। তিনি বলেন, আহবায়ক কমিটির নেতৃত্বেই ইউনিয়ন, পৌরসভা ও উপজেলা পর্যায়ের সম্মেলন ও কাউন্সিল হবে। এরপর সম্মেলন ও কাউন্সিলের মাধ্যমে জেলা কমিটি গঠন করা হবে।
জেলা বিএনপির কে হচ্ছে আহবায়ক বা কমিটি কতজন নিয়ে হতে পারে-এমন প্রশ্নে- তিনি বলেন, আলোচনায় থাকা জ্যেষ্ট নেতাদের মধ্যে একজনকে আহবায়ক করে ১০/১৫জনের একটি কমিটি দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

উল্লেখ্য, সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির কাউন্সিলর অনুষ্ঠিত হয় ২০১৬ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি। দলের মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সহ সিনিয়র নেতাদের উপস্থিতিতে নগরীর সোলেমান হলে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে কাউন্সিলরদের ভোটের সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি হন আবুল কাহের শামীম ও সাধারণ সম্পাদক হন আলী আহমদ। দুই বছর মেয়াদের এ কমিটির মেয়াদোত্তীর্ণ হয় তিন মাস আগে। এরপর নতুন আহবায়ক কমিটি গঠনের তোড়জোড় শুরু হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ