শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯, ১০:২১ পূর্বাহ্ন

উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে পরাজয় দিল্লির

উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে পরাজয় দিল্লির

নিউজটি শেয়ার করুন

স্পোর্টস ডেস্ক : পাঞ্জাব জিতেনি, বরং হেরে গেছে দিল্লি। ইনিংসের শুরু থেকে অসাধারণ খেলেও দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিতে পারেননি সুরেশ আয়ার। ৪ রানে জয় পায় পাঞ্জাব।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য দিল্লির প্রয়োজন ছিল ১৭ রান। কঠিন লক্ষ্যের সামনে দাঁড়িয়েও দারুণ ব্যাটিং করে গেছেন তরুণ ক্রিকেটার আয়ার।

ওভারের প্রথম বল ডট। দ্বিতীয় বলে ছয় হাঁকিয়ে দলকে খেলায় রাখেন আয়ার। পরের দুই বলে নেন ২ রান। পঞ্চম বলে বাউন্ডারি হাঁকালে শেষ বলে টার্গেট দাঁড়ায় ৫ রান।

শেষ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু মজিবর রহমানের বলে লং অফে ক্যাচ উঠে গেলে তা লুপে নিতে ভুল করেননি অ্যারন ফিঞ্চ। আর তাতেই থেমে যায় আয়ারের একার লড়াই।

ইনিংসের শেষ বল পর্যন্ত লড়াই করেও দলকে জয় উপহার দিতে পারেননি আয়ার। ৪৫ বলে ৫৭ রান করেন তিনি।

পাঞ্জাবের করা ১৪৩ রানের জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে। সময়ের ব্যবধানে উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে যা দিল্লি ডেয়ারডেভিলস। শেষ দিকে জয়ের জন্য দিল্লির প্রয়োজন ছিলো ২৪ বলে ৪৩ রান। ১৭তম ওভারে বিরন্দর সরনকে এক ছয় এবং সমান বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ১৫ রান আদায় করে নেন রাহুল তিওয়াতি। তখন ম্যাচ জুকে যায় দিল্লির দিকে।

আগের ওভারে অসাধারণ খেলে যাওয়া তিওয়াতি ১৮তম ওভারের শেষ বলে লোকেশ রাহুলের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে বিদায় নেন। ২১ বলে ২৩ রান করে তিওয়ারি বিদায় নিলে দলের দায়ভার চলে আসে সুরেশ আয়ারের কাঁদে।

শেষ দিকে জয়ের জন্য দিল্লির প্রেয়োজন ১২ বলে ২১ রান। ১৯তম ওভারে বিরন্দর মাত্র ৪ রানে ১ প্লাঙ্কেটের উইকেট তুলে নিলে চাপের মধ্যে পড়ে যায় দিল্লি।

এর আগে ব্যাট করে সোমবার দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলায় টসে হেরে ব্যাটিং ৮ উইকেটে ১৪৩ রান সংগ্রহ করে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।

দিল্লির ঘরের মাঠে ক্রিস গেইল ছাড়া পাঞ্জাবকে এদিন ছন্নছাড়াই মনে হয়েছে। ইনিংসের শুরু থেকে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে একঘরে হয়ে যায় পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থানে থাকা দলটি।

৬ রানে ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চের উইকেট হারিয়ে চাপের মধ্যে পড়ে যায় প্রীতি জিনতার পাঞ্জাব। শুরুর ধকল কাটিয়ে ওঠার আগেই ফের বিপদে পড়েন লোকেশ রাহুল। চলতি আইপিএলে পাঞ্জাবের হয়ে অসাধারণ খেলে যাওয়া এই মারমুখী ওপেনার এদিন ফেরেন ১৫ বলে ২৩ রান করে।

৪২ রানে দুই ওপেনারের উইকেট হারিয়ে ধীরে চলো নীতি অনুসরণ করে পাঞ্জাব। দলকে চাপমুক্ত করতে না করতেই বিপদে পড়ে যান মায়াঙ্ক আগরওয়াল। ১৬ বলে ২১ রান করে ফেরেন তিনি।

দলের কঠিন পরিস্থিতির দিনেও ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে পারেননি যুবরাজ সিং। এদিন ফেরেন ১৪ রানে। চলতি আইপিএলে পাঞ্জাবের এই অলরাউন্ডারের সংগ্রহ ৫ ম্যাচে ৫০ রান।

দলের ব্যাটিং ব্যর্থতার দিনে ৩২ বলে ৩৪ রান করেন করুন নায়ার। ১৯ বলে ২৬ রান করে ফেরেন গেইলের পরিবর্তে খেলতে নামা মিলার।

আইপিএলের চলমান ১১তম আসরে আগের ৫ খেলায় ৪টিতে জিতে ৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে পাঞ্জাব।

টেবিলের শীর্ষে থাকায় ক্রিস গেইলকে একটু বিশ্রাম দেয়া এবং দিল্লির বিপক্ষে নিজেদের বোলিং শক্তি বাড়াতে গেইলের পরিবর্তে খেলানো হয় মিলারকে।

চলতি আইপিএলে পাঞ্জাবের প্রথম ম্যাচে খেলে বাদ পড়ে যাওয়া মিলার এদিন খেলেন নিজের দ্বিতীয় ম্যাচ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ