বৃহস্পতিবার, ১৮ Jul ২০১৯, ১১:১৫ পূর্বাহ্ন

একাকীত্বের গল্প :১ম পর্ব

একাকীত্বের গল্প :১ম পর্ব

নিউজটি শেয়ার করুন

একাকীত্বের গল্প : কারো জন্য একাকীত্ব মানে একরাশ হতাশা আবার কারো জন্য নিজেকে চেনা, হয়তোবা নিজের ভেতরের মানুষটির সাথে একান্ত কিছু সময় কাটানো। আমরা অনেক সময় হাজার মানুষের ভিড়েও নিঃসঙ্গতায় ভুগি, আবার কখনো বা কারো হাতে হাত রেখে একটু পথ চলাতেই আনন্দ, মনে হয় যেন হাজার মাইল একসাথে পাড়ি দিয়ে এসেছি……… আজকে আমার নিঃসঙ্গতার গল্প নিয়ে ।বড় ভাগ্নের সামনেই সিগারেট ধরালাম, ও জিজ্ঞেস করল,কি হচ্ছে মামা ব্যাপারটা?বললাম :চেপে যা,অথবা চোখ বন্ধ করে নে।অনেক বড় হয়ে গেছে।বাসার প্রায় সবার মতো ও বিষয়টা জানে।ব্যাপারটা পরিবারের জন্য ও লজ্জার।ভাগ্নে বলল: কি ঠিক করেছ মামা?কি করবে এখন?আমি:জানিনা।ভাগ্নে:চরিত্র ভাল না হলে চেহারা দিয়ে কি হয় মামা?ভালো মানুষ কি এরকম জঘন্য কাজ করতে পারে?আমি:হুম।ভাগ্নে:তুমি কি ওকে ঘিন্না করো? আমি:না।একদম না,ভালবাসি। ভাগ্নে:এখনো? আমি:কেন নয়?মানুষ তো খারাপ মেয়েদেরকেও ভালবেসে ফেলে,আর ও তো এরকম ছিলনা।ভাগ্নে:উনি তো তোমাকে ভুলেই গেছেন।নতুন বি,এফ নিয়ে ভালোই আছেন,ভার্সিটি যাচ্ছেন, ঘুরতে যাচ্ছেন। তোমার কথা তো ভুলেও মনে করেন না।।আমি:সেটাই তো স্বাভাবিক। ভাগ্নে:তাহলে তুমি? তুমি কেন মনে রেখেছ? আমি:জানিনা।আমি এমনই হয়তো।ভাগ্নে : উনি কি কখনো তোমাকে ভালবাসতেন বলে মনে হয়?আমি:আগে মনে হত।এখন আর হয়না।ভাগ্নে:তোমার কাছে জীবনের মানে বা উদ্দেশ্য কি?আমি:আগে ছিল একরকম, উনাকে নিয়েই জীবন কাটানো, ভালো থাকার চেষ্টা করা।বাকী জীবন উপভোগ করা,আর এখন কোন উদ্দেশ্য নেই,তবে একমুহুর্তে মনে হয় এটা করি,ঐটা করি পরমুহুর্তে আগ্রহ হারিয়ে ফেলি।মনে হয় কি লাভ এগুলা করে।ভাগ্না: মামা।আমি:হুম।ভাগ্না:তোমাকে কখনো কাঁদতে দেখিনি,কখনো কি কেঁদেছ? আমি:হুম।অনেকবার।তবে আমি একা কাঁদি।সবার সামনে কাঁদি না।একজনের কাছে অনেক ছোট হয়েছি আর চাইনা।মনে রাখার মত ৩ বার কেঁদেছি।বাবাকে কবরে রাখার পর যখনি বুজতে পারলাম,আর তো দেখতে পাবনা।মা স্ট্রোক করার সময়,যখন বলছিলেন,”আমি মারা গেলে ভাল হয়ে চলিস রে বাবা।মেয়েটা ভালো, বিয়ে করিস,কষ্ট দিস না।আর শেষ বার যখন একজনের সাথে ঝগড়া করে এসে মনে হল যদি সত্যি দূরে চলে যায়,তখন। ভাগ্না:এখন কাঁদ না? আমি: কাঁদবো না কেন।এখনো কাঁদছি। ভাগ্নে :কই!!!!আমি তো দেখছি না।আমি: আরে বোকা। সব কান্না কি আর দেখা যায়রে, বাবা।বাদ দে।চল,বাদাম কিনে দেই,খাঁ। আমিও আরেকটা সিগারেট ধরাই।ভাগ্না:মামা,তুমি নাকি অনেক মেধাবী ছিলে,সত্যি নাকি?নানু বলল।
আমি:ভুল বলেছে।আমি বোকা,কখন কি করতে হয় বুঝি না,মেধাবী বলতে খালি পড়াশুনা বুঝায়নারে বাবা।ভাগ্না:উনি যদি কখনো তোমার সামনে পরে যায়,কি করবে?আমি:জানিনা।মনে হয় আমরা ২ জনেই পাশ কাটিয়ে চলে যাব।আমি তাকাবো না।ভাগ্না:কেন!
আমি:জানিনা।এটাই নিয়ম মনে হয়।
চল বাসায় যাই। দেড়ি হলে তোর মা চিন্তা করবে।
ভাগ্না:চলো।লেখক : তালুকদার তুহিন,প্রভাষক,বিশ্বনাথ কলেজ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ