মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:১৩ অপরাহ্ন

কানাইঘাটে ৪৩ বস্তা ভিজিএফ’র চাল আটক

কানাইঘাটে ৪৩ বস্তা ভিজিএফ’র চাল আটক

নিউজটি শেয়ার করুন

কানাইঘাটে প্রতিনিধি : কানাইঘাট ৯নং রাজাগঞ্জ ইউনিয়নে স্থানীয় ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে কালোবাজারে বিক্রির চেষ্টার অভিযোগ এনে ভিজিএফ এর ৪৩ বস্তা চাল আটক করেছেন।

পরে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানার নির্দেশে উপজেলা সহকারী কশিনার (ভূমি) লুসিকান্ত হাজং ঘটনাস্থলে গিয়ে থানা পুলিশের সহায়তায় ভিজিএফ এর ৪৩ বস্তা চাল জব্দসহ একটি ট্র্যাক্টর আটক করে রাত ১১টার দিকে থানায় নিয়ে আসেন। ভিজিএফ এর চাল আটক নিয়ে এলাকায় জনমনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

জানা যায়, পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষ্যে আজ মঙ্গলবার রাজাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের কয়েকটি ওয়ার্ডে ভিজিএফ কার্ডধারীদের মাঝে ১৫ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়। এরপর ইউনিয়নের ৬, ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের ভিজিএফ কার্ডধারীদের চাল ইউনিয়ন পরিষদ থেকে একটি ট্র্যাক্টর গাড়ী দিয়ে অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার সময় ক্ষমতাসীন দলের কিছু নেতাকর্মী ও স্থানীয় জনতা গাজী বোরহান উদ্দিন সড়কের খালপার ময়ূরমাটি রাস্তার মোড়ে ট্র্যাক্টর ভর্তি ৪৩ বস্তা ভিজিএফ এর চাল কালোবাজারে বিক্রির উদ্দেশ্যে নেওয়া হচ্ছে বলে তারা আটক করে রাখেন।

খবর পেয়ে ভূমি কর্মকর্তা সন্ধ্যার পর সেখানে গিয়ে চাল ও ট্রাক্টর আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। চাল আটকের পর এ ব্যাপারে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন ভূমি কর্মকর্তা লুসিকান্ত হাজং। তবে সুনির্দিষ্ট তদন্ত ছাড়া মামলায় কোন জনপ্রতিনিধিকে আপাতত আসামী করা হবে না বলে তিনি জানান।

এদিকে ভিজিএফ এর চাল আটক নিয়ে পরস্পর বিরোধী খবর পাওয়া গেছে। রাজাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফখরুল ইসলাম জানিয়েছেন, ‘তার ইউনিয়নের ভিজিএফ কার্ডধারীদের মাঝে ঈদ-ঊল-ফিতর উপলক্ষ্যে সোমবার রাতে উপজেলা খাদ্য গুদাম থেকে ভিজিএফ এর চাল ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে রাখা হয়। আজ মঙ্গলবার ভিজিএফ এর চাল যাতে করে কার্ডধারীরা সুবিধামতো পান এজন্য পরিষদের সদস্যরা সভা করে ইউনিয়ন পরিষদে ও নয়াবাজারে চাল বিতরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ৬, ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের ভিজিএফ এর চাল ট্রাক্টরে করে নয়াবাজারে নিয়ে যাওয়ার সময় পথিমধ্যে লুৎফুর, শহিদসহ আরো কয়েকজন চাল ভর্তি ট্রাক্টর আটক করে সেই চাল কালোবাজারে বিক্রি করার জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে এলাকায় ছড়ায়। আমি বিষয়টি তাৎক্ষণিক নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানাকে অবহিত করে ঘটনাস্থলে যাওয়ার পরও তারা ভিজিএফ এর চালগুলো ছেড়ে না দিয়ে নানা ধরণের অপপ্রচার করলে ভূমি কর্মকর্তা লুসিকান্ত হাজং ট্রাক সহ চাল থানায় নিয়ে যান।’

তিনি বলেন- কিছু লোকজন প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে তিনি সহ তার পরিষদের সদস্যদের হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য ভিজিএফ এর চাল কালোবাজারে বিক্রির মিথ্যা অভিযোগ এনেছে। তিনি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ দ্বারা বিষয়টি তদন্ত করে দেখার দাবী জানিয়েছেন।

অপরদিকে আওয়ামী লীগ নেতা লুৎফুর রহমান, শহীদ আহমদসহ স্থানীয় ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, চেয়ারম্যান ফখরুল ইসলাম, ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মিনহাজ ও ৭নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সরফ উদ্দিন গংরা ভিজিএফ কার্ডধারীদের মাঝে চাল বিতরণ না করে অন্যত্র বিক্রির উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়ার সময় তারা আটক করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ