সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৩৩ পূর্বাহ্ন

কোন দেশ আমার দেশের উর্ধ্বে নয়: পরিকল্পনামন্ত্রী

কোন দেশ আমার দেশের উর্ধ্বে নয়: পরিকল্পনামন্ত্রী

নিউজটি শেয়ার করুন

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, সব পেশার প্রতি সম্মান দেখানো উচিত। কারণ এসব পেশাজীবি মানুষদের শ্রমের মাধ্যমেই দেশ উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্চে। সব পেশাই সমান, হোক তা রাজমিস্ত্রি, রিক্সাচালক কিংবা কৃষক ও অন্যান্য পেশা। এখন দেশের আয় বৃদ্ধি পেয়েছে।বড়বড় কথা বললেই আয় বাড়েনা, আয় বাড়ে পরিশ্রমের মাধ্যমে। আর এই দেশের নানা পেশার মানুষই এর আয়ের কর্ণধার। তারা পরিশ্রম করছেন তাই আয় বাড়ছে। এই আয় জাতীয় আয়, এই আয় প্রকৃত আয়। আর আওয়ামীলীগ সরকার এই আয়কে উন্নয়নের কাজে লাগাচ্ছে।

তিনি বলেন, দেশের আয় বৃদ্ধি পেয়েছে বলেই স্কুল কলেজ, রাস্থাঘাট, মসজিদ মন্দিরের এত উন্নয়ন হচ্ছে। আমাদের দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয় এখন আর আগের মত নেই বিদ্যালয় গুলোকে সকল সুযোগ সুবিধা দিয়ে পরিপূর্ণ করা হয়েছে। প্রাথমিক বিদ্যালয় গুলোর যে চমকপ্রদ গেইট তা বিশ্বের অন্য কোন দেশে নেই। অনেক দেশ ঘুরেছি কখনো পাইনি। আর এই উন্নয়নের দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার। শেখ হাসিনা সর্বদাই দেশের উন্নয়নের চিন্তা করেন। তাই শিক্ষক সহ দেশবাসীর শেখ হাসিনাকে অনুসরণ করা উচিত। জননেত্রী সবসময় আমাদেরকে কথা কম বলে কাজ বেশি করার কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, কোন দেশ আমার দেশের উর্ধ্বে নয়। আবার কোন দেশ আমার দেশের চেয়ে কমও নয়। কোন ভাষা আমার ভাষার উর্ধ্বে নয়। আবার কোন ভাষাই আমার ভাষার চেয়ে অধম নয়। তবে আমাদের উচিত আগে নিজের ভাষাকে ভালভাবে জানা, ভাষার প্রতি সম্মান দেখানো। শুধু ভাষার গান গেলেই হবে না। ভাষাকে জানতে হবে, অন্তরে লালন করতে হবে। মুখে এক অন্তরে এক হলে চলবে না।

শুক্রবার সকাল ১০ টায় পরিকল্পনামন্ত্রীর জন্মস্থান দক্ষিণ সুনামগঞ্জের ডুংরিয়ার বাজারের মাঠে ডুংরিয়া উত্তরণ ক্লাব ও ডুংরিয়া হাইস্কুল এন্ড কলেজের আয়োজনে ঐতিহ্যবাহী এম এ মান্নান প্রাথমিক মেধাবৃত্তি পরীক্ষার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ডুংরিয়া হাইস্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল মোনায়েমের সভাপতিত্বে ও চ্যানেল টুয়েন্টিফোর টিভির সাংবাদিক গোলজার আহমদ, দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী তানজুমা ও হাম্মাদ আজাদের যৌথ সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেব বক্তব্য রাখেন- সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ, জেলা পুলিশ সুপার বরকত উল্লাহ খান, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার পঞ্চানন বালা, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জাহাঙ্গীর আলম, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা ইউএনও মোঃসফি উল্লাহ, জগন্নাথপুর উপজেলার ইউএনও মাহফুজুর রহমান, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ওসি ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী, জগন্নাথপুর থানার ওসি হারুন অর রশীদ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- জগন্নাথপুর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান বিজন কুমার দেব, উপজলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বজলুর রহমান, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি তহুর আলী, সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান, পরিকল্পনামন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব হাসনাত হোসাইন, জয়কলস ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ মিয়া, পুর্ব পাগলা ইউপি চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন, পশ্চিম বীরগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, ডুংরিয়া উত্তরণ ক্লাবের সভাপতি মনিরুজ্জামান সুজন, সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম অমিত, পরিক্ষা নিয়ন্ত্রক নিহার রঞ্জন দাস, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিবাবক সহ প্রমুখ।

অপরদিকে সকাল সাড়ে ৯ টায় ডুংরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হতদরিদ্র ও মেধাবি শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ