রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ১২:১৩ পূর্বাহ্ন

ঘরে-বাইরে চাপে আরিফুল

ঘরে-বাইরে চাপে আরিফুল

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক: ঘরে-বাইরে শঙ্কায় আরিফুল হক চৌধুরী। দলের ভেতরেও তিনি রয়েছেন মুশকিলে। এখনো বদরুজ্জামান সেলিম তাকে ছাড় দেননি। আর জামায়াত পুরোপুরি বেঁকে বসেছে। তাদের প্রার্থী এডভোকেট জুবায়ের নির্বাচনে থাকবেনই। এই অবস্থায় এখনো নিজ দল ও জোটের ভেতরের দ্বন্দ্ব দূর করে নির্ভার হতে পারেননি আরিফ।

দলের ভেতরে যখন এই অবস্থা তখন বাইরেও তার শঙ্কা। এবার যেন সব কিছু উল্টো রথে ঘুরছে। প্রশাসন থেকে কড়াকড়ি তার উপর। তার ঘনিষ্ট বিএনপি নেতাদের বাসায় যাচ্ছে পুলিশ। শুরু থেকে সষ্ঠুু নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তার। এ কারণে যেখানেই যাচ্ছেন আরিফুল হক চৌধুরী প্রশাসনকে সতর্ক করে দিচ্ছেন। নিরপেক্ষ মাঠ নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন। বৃহস্পতিবার সিলেট মহানগর বিএনপি’র বর্ধিত সভায় আরিফুল হক চৌধুরী বলেছেন- ‘সিলেট হচ্ছে আধ্যাত্মিক শহর। এখানে কোনো অন্যায় সহ্য করা হয় না। সিলেটে একচোখা নীতি করে অনেক ডিসি, এসপি চাকরিচ্যুত হয়েছেন। অনেকেই নানা বিপদে পড়েছেন। সুতরাং কোনো বিশেষ মহলের কথায় একদিকে হেলে পড়লে আল্লাহ্‌ সহ্য করবেন না।’ এবার সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে শুরু থেকেই আরিফের কণ্ঠে কঠোর সুর। সব অভিযোগ তার নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনের উপর। এ কারণে তার পক্ষে সিলেট জেলা বিএনপি থেকে নির্বাচন কমিশনে লিখিত অভিযোগ করেছিলেন। তার কাঠগড়ায় ছিলেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। কামরানের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়েরের পর ফের উল্টো আওয়ামী লীগের অভিযোগে অভিযুক্ত হলেন তিনি। তার বিরুদ্ধেও আওয়ামী লীগের তরফ থেকে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দেয়া হয়েছে। আরিফ অভিযোগ করেছেন- সিলেটের প্রশাসন ‘একচোখা’ নীতিতে চলছে। তারা বিএনপি’র নেতাকর্মীদের বাড়ি-বাড়ি তল্লাশি করছে। নির্বাচনকে সামনে রেখে এমন ঘটনা কোনোভাবেই সহ্য করা যায় না। এজন্য তিনি প্রশাসনকে নিরপেক্ষ থাকার আহ্বান জানান। বাইরের লড়াইয়ে এখনো অনেক পিছিয়ে আরিফুল হক চৌধুরী। কামরান যেখানে অনেক কিছু গুছিয়ে এনেছেন সেখানে ঘরের ভেতরে বিদ্রোহ থামাতে ব্যস্ত আরিফুল হক চৌধুরী। তার পক্ষে ইতিমধ্যে সিলেট বিএনপি’র সিনিয়র নেতারা একাট্টা হয়েছেন। তবে- অনেকেই এখনো ধারে কাছেও যাননি। আর এবারের নির্বাচনে তার সঙ্গে প্রকাশ্য বিদ্রোহ দেখিয়ে প্রার্থী হয়েছেন মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম। নির্বাচনে প্রার্থী হয়ে তিনি বিভিন্ন স্থানে কুশলবিনিময় করছেন। সেলিমের দাবি- সিলেট বিএনপি’র সিনিয়র নেতারা তার পক্ষে মৌন সমর্থনে রয়েছেন। তিনি স্থানীয়ভাবে বিএনপি’র সমর্থন পাচ্ছেন। ভোটের দিন সেটির প্রতিফলন হবে বলে জানান তিনি। সেলিমকে বশে আনতে বিএনপি’র সিনিয়র নেতারা আলোচনা চালাচ্ছেন। কিন্তু সেলিমের ক্ষোভ কমছে না। বরং এই ক্ষোভ দিন দিন আরো দানা বাঁধছে। বদরুজ্জামান সেলিমের ক্ষোভ কমাতে বৃহস্পতিবার রাতে তার বাসায় যান বিএনপি নেতারা। এর মধ্যে ছিলেন- চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এমএ হক, খন্দকার মুক্তাদিরসহ সিনিয়র নেতৃবৃন্দ। তারা সেলিমকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর অনুরোধ জানিয়েছেন। গতকালও সিলেট বিএনপি’র কয়েকজন সিনিয়র নেতা জানিয়েছেন- বদরুজ্জামান সেলিমের সঙ্গে আলোচনা চলছে। তার ক্ষোভ কমানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। দলের প্রয়োজনে বদরুজ্জামান সেলিম শেষ মুহূর্তে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে পারেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন ওই নেতারা। শুধু বদরুজ্জামান সেলিমই নন, শরিক দল জামায়াতে ইসলামী এবার মাঠ ছাড়বে না। ইতিমধ্যে সিলেটে কয়েক দফা ২০ দলীয় জোটের বৈঠক হয়েছে। ওইসব বৈঠকে জামায়াতে ইসলামীর অংশগ্রহণ ছিল। জামায়াত সিলেটে জোটের ডাকে সাড়ায় দেয়নি। জামায়াতে ইসলামী সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আরিফুল হক চৌধুরীর চেয়ে তাদের প্রার্থী এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়েরকেই যোগ্য প্রার্থী মনে করছে। ওদিকে- বিগত ৫ বছরের নানা ঘটনাবলীর কারণে আরিফের উপর ক্ষুব্ধ সিলেটের জামায়াতে ইসলামী। সিলেট জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ  জানিয়েছেন- আমরা ২০ দলীয় জোটের বৈঠকে জামায়াতকে দাওয়াত দিলেও তারা আসেনি। তাদের ছাড়াই আমরা বৈঠক করেছি। বৈঠকে ৯ দলের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

তথ্য সূত্র :মানবজমিন

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ