বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ১১:১৬ অপরাহ্ন

চলছে মধু মাস: রসালো ফলে ভরপুর সিলেটের বাজার

চলছে মধু মাস: রসালো ফলে ভরপুর সিলেটের বাজার

নিউজটি শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক:  চলছে মধুমাস জৈষ্ট্য। রসালো ফলে ছেয়ে গেছে বাজার। বছরজুড়ে কমবেশি ফল পাওয়া গেলেও সবচেয়ে বেশি পাওয়া যায় বৈশাখের শেষ আর মধুমাসজুড়ে। রঙবাহারি বিভিন্ন ফলের মৌ মৌ গন্ধে ভরিয়ে তোলে চারপাশ।

ষড়ঋতুর দেশে রোদে তেঁতে ওঠা জ্যৈষ্ঠে তৃষ্ণার্থ মানুষ পিপাসা মেটায় বিভিন্ন প্রজাতির রসালো ফল দিয়ে। এবছর রমজানের শুরুর দিকে বিদায়ের দ্বার প্রান্তে এসেছে বৈশাখ। সারাদিন সিয়াম-সাধনা পালন করে ইফতারের সময় রসালো ফল পছন্দ করে থাকেন অনেকে। তাই পছন্দের ফল কিনতে ইতোমধ্যে বাজারে ভীড় জমাচ্ছেন নগরবাসী। বাজারঘুরে আম পাওয়া না গেলেও লিচুর আমদানী ঘটেছে চোখে লাগার মতো।

লিচুর পাশপাশি আপেল, আঙ্গুর, মালটা, ইক্ষু, কাঠাঁল, ভাঙি, পেয়ারাসহ রসালো অনেক ফল ইতোমধ্যে বাজারে আসতে শুরু করেছে। সিলেট নগরীঘুরে দেখা গেছে ফলের দোকানগুলেতে থরে থরে সাজানো নানা জাতের মৌসুমি ফল। জিভে জলতোলা চকচকে বর্ণিল এসব ফল পথচারীদের সহজেই দৃষ্টি কাড়ে। তবে এসব চকচকে সব ফলই যে নিরাপদ তা বলা যায় না। এসব ফলের বেশিরভাগই কেমিক্যাল দিয়ে পাকানো। বিক্রেতারা অবশ্য তা মানতে নারাজ। তাদের দাবি এসব ফর্মালিনমুক্ত।

নগরীর দক্ষিণ সুরমার কদমতলি ফলের আড়ত ঘুরে দেখা গেছে একমাত্র কিশোরগঞ্জ থেকে আমদানীকৃত লিচুই বাজারে আসছে। ১শ’ পিসের লিচুর ছড়ি ১০টি ছড়ি পাইকারি ১২০০-১৫০০ টাকা দওে বিক্রি করছেন বলে আড়তদাররা জানিয়েছেন।

এদিকে ব্রাজিল, অস্ট্রেলিয়া, সাউথ আফ্রিকা, ভারত থেকে আমদানীকৃত হরেক রকমের ফল বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়াও মৌলভীবাজারের বড়লেখা, সিলেটের হরিপুর থেকে কাঠাঁল, শ্রীমঙ্গল ও বিয়ানীবাজারের জলডুপ, ও রাঙ্গামাটি আনারস, খুলনা থেকে আমদানীকৃত বাঙ্গী ইতোধ্যে বাজারে আনা হয়েছে। সরেজমিনে বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ব্রাজিলের রয়েল গালা আপেল প্রতি কেজি ১৮৫ টাকা, মিসরি ও সাউথ আফ্রিকান মাল্টা প্রতি কেজি ১৪০ টাকা, আঙ্গুর (সাদা) ইন্ডিয়ান ২৮০ টাকা, আঙ্গুর (লাল) অস্ট্রেলিয়ান ৪০০ টাকা, বাঙ্গি প্রতি শ’ ৬/৭ হাজার টাকা করে পাইকারি বিক্রি হচ্ছে। অপরদিকে ডালিম (ইন্ডায়িন) কেজি ২০০ টাকা, কাঠাল প্রতি পিস ৩০-১০০ টাকা, প্রতি হালি আনারস ৭০-১২০ টাকা, ইক্ষু প্রতি শ’ ২২০০-২৪০০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে। তবে খুচরা বাজারে এসব ফলের দামে খুব একটা তফাৎ পরিলক্ষিত হয়নি

বাজারে লিচুর আমদানীর কথা জানিয়ে পাইকারী ব্যবসায়ী মকবুল ইসলাম জানান, বাজাওে নতুন ফলের মধ্যে একমাত্র লিচু এসছে। এব্যাপারে ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর সিলেটের সহকারি পরিচালক জাহাঙ্গির আলম বলেন, ভেজাল বিরোধী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ফলের আড়ত, দোকানগুলোও আমরা নিয়মিত মনিটরিং করছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ