বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৮:৪৭ পূর্বাহ্ন

চীনের বাজারে বাড়ছে পাকিস্তানি পতিতা

চীনের বাজারে বাড়ছে পাকিস্তানি পতিতা

নিউজটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:চীনের পতিতালয়ে বাড়ছে পাকিস্তানি পতিতা। আর তা দেখে রীতিমতো চিন্তিত পাকিস্তানের বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থা। এই বেআইনি কারবারে মাথাব্যথার কারণ হয়ে উঠেছে বন্ধুদেশ চীনেরও। ডন।

নারী পাচারের অন্যতম পন্থাই হল বিয়ে। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে অথবা বিয়ে করেই মহিলাদের অন্যত্র বিক্রির পরিচিত এই কায়দা প্রতিনিয়ত বেড়ে চলছে পাকিস্তানে। পাক কর্তৃপক্ষ ক্রমবর্ধমান এই নারী পাচারের তদন্তে নেমে একাধিক চক্রের হদিস পেয়েছে। মে মাসেই ১২ জন সন্দেহভাজন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে।

জানা যায়, এই দলের সদস্যরা পাক তরুণীদের চীনে পাচার করত। গ্রেফতার হওয়া এই ব্যক্তিদের মধ্যে আটজন চীনের এবং চারজন পাকিস্তানের নাগরিক।

পাকিস্তানের ফেডারেল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সির শীর্ষ এক কর্তা জামিল আহমেদ বলেন, ‘পাকিস্তানি নারীদের চীনে পাচার করে তাদের দিয়ে পতিতাবৃত্তির কাজ করানোর খবর আমাদের কানে আসার পরেই এই গ্যাংয়ের ওপর নজর রাখছিলাম আমরা।’ তিনি বলেন, বেশ কয়েকটি গ্যাং এই কাজ করে। প্রধানত পাকিস্তানি খ্রিস্টান সংখ্যালঘুই এদের লক্ষ্য।

পাকিস্তান থেকে নারী পাচারের এ ঘটনা অনেক আগেই সামনে এনেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকারবিষয়ক সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। তাদের সাম্প্রতিক রিপোর্ট যা বলছে, তা আসলেই ভয়ংকর।

কমপক্ষে পাঁচটি এশীয় দেশ থেকে চীনে ‘বউ’ পাচারের ঘটনা ক্রমে বাড়ছে। ইসলামাবাদে চীনা দূতাবাসও অবৈধ ও সীমান্ত পারাপার করে বিয়ে দেয়ার বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

পাক সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, কিছুদিন আগেই ফয়সালাবাদে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে হানা দেয় পুলিশ। একজন খ্রিস্টান মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠান ছিল সেটি। অনুষ্ঠানে চীনের একজন পুরুষ ও একজন মহিলাকে এবং একজন পাদ্রিকে গ্রেফতার করা হয়। আহমেদ বলেন, ‘ওই গ্যাংয়ের সদস্যরা স্বীকার করেছে যে তারা কমপক্ষে ৩৬ জন পাকিস্তানি মেয়েকে চীনে পাঠিয়েছেন তারা, চিনে তাদের পতিতাবৃত্তির জন্যই ব্যবহার করা হয়।’

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ