রবিবার, ১৮ অগাস্ট ২০১৯, ০৮:৫৫ পূর্বাহ্ন

তারেক রহমান অন্যায় কিছু করেননি: ড. মোশাররফ

তারেক রহমান অন্যায় কিছু করেননি: ড. মোশাররফ

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক : বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, তারেক রহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষকের সঙ্গে কথা বলেছেন। কোটা সংস্কারের দাবিতে যারা আন্দোলন করছেন তাদের সমর্থন-সহানুভূতি জানানোর কথা তিনি (তারেক) বলেছেন।

যৌক্তিক একটি আন্দোলনে তিনি সমর্থন দিয়েছেন। তিনি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান। তিনি যদি দল সমর্থক বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষককে আন্দোলনে সহযোগিতা-সমর্থন দিতে বলেন এখানে কোনো অন্যায় নেই।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন। ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি এবং গণতন্ত্র উত্তরণে সুষ্ঠু নির্বাচন অপরিহায’ শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজন করে ‘নাগরিক কণ্ঠ’।

সংগঠনের সভাপতি রমিজ খানের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের একাংশের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, আমার দেশ পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমেদ, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা রিয়াজুল ইসলাম রিজু, শামীমুর রহমান শামীম, কুমিল্লা দক্ষিণের মহিলা দলের সভাপতি সাফিনা বেগম প্রমুখ।

কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ভূমিকা রাখার পরামর্শ দিয়ে সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএনপি সমর্থক শিক্ষক নেতা ড. মামুন আহমেদকে

ফোন করেন লন্ডনে থাকা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

এ প্রসঙ্গে খন্দকার মোশাররফ আরও বলেন, ‘তারেকের সমর্থন যৌক্তিক ছিল, আজকে প্রমাণ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বাধ্য হয়ে ওই আন্দোলনের কাছে মাথানত করে পরাজয় স্বীকার করে কোটা পদ্ধতি বাতিল করে দিয়েছেন।’

তিনি বলেন, ‘সরকার কোটা পদ্ধতিকে ব্যবহার করে প্রশাসনে দলীয়করণ করায় শিক্ষার্থীরা বাধ্য হয়ে আন্দোলনে নেমেছিল।’ বিএনপি ক্ষমতায় গেলে প্রতিবন্ধী, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী এবং মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান ছাড়া অন্য সব কোটা বাতিল করবে বলে জানান তিনি।

কোটার আন্দোলন থেকে শিক্ষা নেয়ার প্রয়োজনও অনুভব করছেন খন্দকার মোশাররফ। তিনি বলেন, ‘এ রকম যৌক্তিক আন্দোলন থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে। জনগণ এ রকম আন্দোলনের জন্য অপেক্ষা করছে।’

কোটা প্রথা বাতিলে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এ ঘোষণা সরকারের পরাজয়। আমরা যদি দেখতাম প্রথম থেকে এ দাবিটা মেনে নিয়েছে। অথবা যখন ভিশন ২০৩০ ঘোষণা করেছিলাম সেই সময়ে যদি কোটার বিষয়ে উপলব্ধি করতেন তাহলে আন্দোলন হতো না। আজকে সরকার প্রশাসনকে যেভাবে দলীয়করণ

করেছে এ কোটার সুযোগ নিয়ে। সে জন্য ছাত্রছাত্রীরা আন্দোলনে নামে।

এদিকে বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে কোটা সংস্কার নিয়ে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এবং ঢাবির শিক্ষকের কথোপকথন প্রসঙ্গে কথা বলেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী। তিনি বলেন, কয়েক বছর আগেই তো দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান কোটা নিয়ে কথা বলেছেন। তিনি বিষয়টি নিয়ে অবশ্যই কথা বলতে পারেন। তিনি একশোবার কথা বলতে পারেন। তিনি তো অন্যায় কিছু বলেননি। এটা একটি স্বাভাবিক ঘটনা।’

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ