মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ০৯:০৮ অপরাহ্ন

তিউনিসিয়ায় নৌকাডুবিতে ৩৯ বাংলাদেশি নিখোঁজ

তিউনিসিয়ায় নৌকাডুবিতে ৩৯ বাংলাদেশি নিখোঁজ

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক : তিউনিসিয়ায় নৌকাডুবিতে একজনের লাশ পাওয়া গেছে। ৩৯ জন বাংলাদেশি এখনও নিখোঁজ। ১৪ জন উদ্ধার হয়েছে। তাদের মধ্যে চার জনের অবস্থা গুরুতর।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন বুধবার (১৫ মে) দুপুরে তাঁর কার্যালয়ে এসব তথ্য দেন। তিনি বলেন, ‘তিউনিসিয়ার উপকূলে নৌকাডুবিতে নিহত ও উদ্ধার পাওয়া বাংলাদেশিদের সন্ধানে লিবিয়ায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত একটি তালিকা করে পাঠিয়েছেন।’

নিখোঁজদের মধ্যে কমপক্ষে ২২ জন বৃহত্তর সিলেটের বলেও জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন।

তবে দূতাবাস জানিয়েছে, তারা উদ্ধার পাওয়া ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে এ তালিকা তৈরি করেছে। এখনও সঠিক তথ্য তারা যাচাই করতে পারেনি।

অন্যদিকে, ১৩০ জন যাত্রী নিয়ে একই জলপথে পাড়ি দেওয়া নৌযানটি নিরাপদে ইতালি উপকূলে পৌঁছেছে বলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান। তিনি বলেন, ‘সেখানেও ৭০ জন বাংলাদেশি নাগরিক ছিল।’

বৃহস্পতিবার (৯ মে) গভীর রাতে লিবিয়ার উপকূল থেকে ৭৫ জন অভিবাসী একটি বড় নৌকায় করে ইতালির উদ্দেশে রওনা হয়। গভীর সাগরে তাদের বড় নৌকাটি থেকে অপেক্ষাকৃত ছোট একটি নৌকায় তোলা হলে কিছুক্ষণের মধ্যে সেটি ডুবে যায়।

শনিবার (১১ মে) তিউনিসিয়ার জেলেরা ১৬ জনকে উদ্ধার করে সকালে জারযিজ শহরের তীরে নিয়ে আসেন। উদ্ধার হওয়া অভিবাসীদের মধ্যে ১৪ জন বাংলাদেশি। তারা জানান, সাগরের ঠাণ্ডা পানিতে তারা প্রায় আট ঘণ্টা ভেসে ছিলেন।

নিখোঁজ বাংলাদেশিদের মধ্যে:

কিশোরগঞ্জের তিন জন: সাব্বির (ভৈরব), জালাল উদ্দিন ও সজল (ভৈরব),

মাদারীপুরের সাত জন: আলী আকবর (শিবচর), জাকির হাওলাদার (শিবচর), শাহেদ (রাজৈর), নাইম (রাজৈর), স্বপন, সজীব ও নাদিম (রাজৈর)

শরীয়তপুরের তিন জন: সুমন, মনির, রাজিব ও পারভেজ।

নরসিংদীর একজন: জাহিদ।

সিলেটের ১৬ জন: আব্দুল আজিজ (ফেঞ্চুগঞ্জ), আহমদ (ফেঞ্চুগঞ্জ), লিটন আহমেদ (ফেঞ্চুগঞ্জ), খোকন (বিশ্বনাথ), আফজাল হোসেন (গোলাপগঞ্জ), মমিন আহমেদ (বিশ্বনাথ), দিলাল আহমেদ (বিশ্বনাথ), কাশেম (গোলাপগঞ্জ), জিল্লুর রহমান, কামরান আহমেদ মারুফ, রুকন আহমেদ (বিশ্বনাথ), আয়াজ আহমেদ (ফেঞ্চুগঞ্জ), ইন্দ্রজিত, সুজন আহমেদ (বিয়ানীবাজার), শোয়েব (বিয়ানীবাজার) ও সাজু।

সুনামগঞ্জের দুই জন: মৌলানা মাহবুবুর রহমান ও নাজির আহমেদ।

মৌলভীবাজারের তিন জন: হাফিজ শামিম আহমেদ, জুয়েল (বড়লেখা) ও ফাহাদ আহমেদ (বড়লেখা)।

হবিগঞ্জের একজন: মোক্তাদির।

নোয়াখালীর দুই জন: আব্দুর রহিম ও নাসির আহমেদ (চাটখিল)।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ