বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৮:১২ পূর্বাহ্ন

তিন জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

তিন জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক: কুমিল্লার তিতাস, ময়মনসিংহ ও কক্সবাজারে টেকনাফে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তিনজন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ও শুক্রবার ভোর রাতে পৃথক এসব ঘটনা ঘটে।

কুমিল্লায় নিহত ব্যক্তির নাম মো. আল-আমিন (৬৫) , ময়মনসিংহে আব্দুর রশিদ (৫০) ও টেকনাফে নুরুল আলম (৩৫)।

কুমিল্লা

কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মো. আল-আমিন নামে এক ডাকাত নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২১ ফ্রেব্রুয়ারি) দিবাগত রাতে উপজেলার ঝড়িকান্দি এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আল-আমিন ওই উপজেলার জিয়ারকান্দি ইউনিয়নের নয়াগাঁও গ্রামের মাঈনুদ্দিনের ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে তিতাস থানা পুলিশের ওসি সৈয়দ মোহাম্মদ আহসানুল ইসলাম জানান, দাউদকান্দির গৌরীপুর বাজারের রিয়াজ ট্রেডের ৫ জন সেলসম্যান সিএনজি অটোরিকশাযোগে বৃহস্পতিবার সকালে টাকা নিয়ে হোমনা যাওয়ার পথে গৌরীপুর-হোমনা সড়কের তিতাস উপজেলার দড়িকান্দি সেতু অতিক্রম করার সময় একদল ছিনতাইকারী তাদের কাছ থেকে বিকাশ ডিলারের ৫৮ লাখ টাকা ছিনতাই করে। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ওই চক্রের ২ সদস্যকে ১৫ লাখ টাকাসহ আটক করে পুলিশ।

পরে অবশিষ্ট টাকা উদ্ধারে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে আটক আল-আমিনকে সঙ্গে নিয়ে অভিযানে গেলে তিতাসের দড়িকান্দি নামক এলাকায় পৌঁছালে একদল ডাকাত পুলিশের গাড়িকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এ সময় আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এতে ডাকাতরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আল-আমিনকে উদ্ধার করে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।নিহত আল-আমিনের বিরুদ্ধে ডাকাতি, ছিনতাইসহ থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি রিভলবার, একটি এলজি ও ৫ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়।

ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহে পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আব্দুর রশিদ (৫০) নামে এক মাদক কারবারি নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন পুলিশের দুই সদস্য।

বৃহস্পতিবার (২১ ফ্রেব্রুয়ারি) দিবাগত রাতে নগরীর পুরাতন ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে জেলা গায়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ কামাল আকন্দ জানান, বৃহস্পতিবার (২১ ফ্রেব্রুয়ারি) রাতে মাদক কেনাবেচা করছে এমন গোপন সংবাদে ভিত্তিতে সেখানে অভিযানে গেলে।

মাদক কারবারিরা ডিবি পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি চালায়। আত্মরক্ষার্থে ডিবি পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এতে মাদকবিক্রেতারা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় রশিদকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত ডিবি সদস্যদের হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ১০০ গ্রাম হেরোইন ও একটি পাইপগান জব্দ করা হয়েছে।

নিহত ওই মাদকবিক্রেতার বিরুদ্ধে বিস্ফোরকসহ সাতটিরও বেশি মামলা রয়েছে বলেও জানান শাহ কামাল আকন্দ।

কক্সবাজার

কক্সবাজারের টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নুরুল আলম (৩৫) নামে এক রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (২২ ফ্রেব্রুয়ারি) ভোর ৫টার দিকে টেকনাফের দমদমিয়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এ সময় দুটি বিদেশি পিস্তল, দুটি ম্যাগজিন ও ১৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

নুরুল টেকনাফের নয়াপাড়া আনসার ক্যাম্পের অস্ত্র লুট ও আনসার কমান্ডার আলী হোসেন হত্যা মামলার প্রধান আসামি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান জানান, রাতে র‌্যাবের একটি টহল দল টেকনাফ দমদমিয়া এলাকায় কিছু লোককে চ্যালেঞ্জ করলে তারা অতর্কিত র‌্যাবের ওপর গুলিবর্ষণ করে। এ সময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। ২৫ থেকে ৩০ মিনিট ধরে চলে দুই পক্ষের গোলাগুলি। এ সময় অন্যরা পালিয়ে গেলেও ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে উদ্ধার করা হয়। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়। পরে র‌্যাব রোহিঙ্গা ডাকাত নুরুল আলমের মরদেহ শনাক্ত করে।’

র‌্যাব জানতে পারে, টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবস্থিত আনসার ক্যাম্পের অস্ত্র লুট ও আনসার কমান্ডার আলী হোসেনের হত্যা মামলার প্রধান আসামি এই নুরুল। সে দীর্ঘদিন পলাতক ছিল। নুরুলের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য টেকনাফ থানা পুলিশকে হস্তান্তর করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ