রবিবার, ২৫ অগাস্ট ২০১৯, ০৯:৩১ অপরাহ্ন

‘দাঁড়াও! তোমার জাদু ছোটাচ্ছি’

‘দাঁড়াও! তোমার জাদু ছোটাচ্ছি’

নিউজটি শেয়ার করুন

স্পোর্টস ডেস্ক : ক্রিস গেইল। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন। অথচ এবারের আইপিএলে বাতিলের খাতায় পড়ে গিয়েছিলেন তিনি। বয়স হয়েছে ৩৯। তাই বুড়ো ভেবে নিলামের দুই দফায় তাকে কেনেনি কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি।

কথায় আছে- দানে দানে তিন দান। তৃতীয় দফায় ক্যারিবিয়ান দৈত্যকে ডেরায় ভেড়ায় কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। দল তো পেলেন। কিন্তু একাদশে জায়গা হচ্ছিল না।

অবশেষে হাঁকডাকের মতোই দানে দানে তিন দান। পাঞ্জাবের তৃতীয় ম্যাচে সুযোগ পান। পেয়েই বুঝিয়ে দেন, বয়স হচ্ছে কিন্তু খুন করার মতো সব অস্ত্রই ধারালো আছে।

চতুর্থ ম্যাচে সেসব অস্ত্রেরই পসরা মেলে ধরলেন গেইল। ব্যাটকে তলোয়ার বানিয়ে কচুকাটা করলেন হায়দরাবাদ বোলারদের। ৬৩ বলে খেললেন ১০৪ রানের বিধ্বংসী ইনিংস।১ চারের বিপরীতে ছক্কা ১১টি।

এটি ক্যারিবীয় দানবের ২১তম টি-টোয়েন্টিতে সেঞ্চুরি। তার তোলা ঝড়েই প্রতিপক্ষকে ১৯৪ রানের লক্ষ্য দেয় পাঞ্জাব। ১৫ রানের রোমাঞ্চকর জয়ও পেয়েছে পরের দলটি।

যারা বুড়ো ভেবেছিলেন, তাদের বুড়ো আঙুল দেখাতেই যেন এদিন পণ করে মাঠে নেমেছিলেন গেইল। উড়তে থাকা হায়দরাবাদ বোলারদের বেদম, বেধড়ক পিটিয়ে মাটিতে নামান তিনি। ৩৯ বলে ফিফটি। ফিফটিকে সেঞ্চুরিতে রূপ দিয়েছেন আর ১৯ বল খেলে।

এদিন সবার ওপর দিয়েই বয়ে গেছে গেইলঝড়। পার পাননি বাংলাদেশের সাকিবও। সেই ঝড়ে বিধ্বস্ত তিনি। ২ ওভারেই দিয়েছেন ২৮ রান।

তবে টি-টোয়েন্টি কিং সবচেয়ে বেশি তাণ্ডব চালিয়েছেন ক্রমেই দুর্ধর্ষ হয়ে ওঠা রশিদ খানের ওপর। আফগান লেগ স্পিনারের নাক-চোখের জল এক করে ছেড়েছেন তিনি। ব্যাটসম্যানদের নাচিয়ে ছাড়া বোলারকে সেভাবেই নাচিয়েছেন ক্যারিবীয় ওপেনার।

রশিদের তৃতীয় ওভারে টানা চার ছক্কা হাঁকান গেইল। যেন মনে মনে বলছিলেন- দাঁড়াও! তোমার জাদু ছোটাচ্ছি।

শেষ পর্যন্ত ৪ ওভারে ৫৫ রান দেন রশিদ, শিকার ১ উইকেট। টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে এত মার আগে কখনও খাননি উনিশের বোলিং বিস্ময়।

বিস্ফোরক ইনিংস খেলে ম্যাচসেরা হয়েছেন গেইল। আইপিএলে এটি তার ৫২তম ম্যাচসেরার পুরস্কার।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ