বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:৪৯ অপরাহ্ন

দুই মাসের মধ্যে পাঁচ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ : সিলেটে স্বাস্থ্যমন্ত্রী

দুই মাসের মধ্যে পাঁচ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ : সিলেটে স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত সিলেট:: স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডা. জাহিদ মালেক এমপি বলেছেন, দেশের সরকারি হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসক সংকট অচিরেই দূর হবে। এ লক্ষ্যে আগামী দু’মাসের মধ্যে পাঁচ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

তিনি আজ বুধবার বিকেলে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. ময়নুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন, জনগণ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিশ্বস রেখেছে। তারা ভোট দিয়েছে, সুশাসন পাওয়ার আশায়। তাদের প্রত্যাশার প্রতিফলন ঘটাতে চায় সরকার। তাই, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের জনগণের দ্বোরগোড়ায় সহজলভ্য চিকিৎসা পৌঁছে দেওয়ার সব উদ্যোগ নিচ্ছে।

নির্বাচনের ইশতেহার অনুসারে সরকার সিলেটসহ দেশের সকল বিভাগীয় শহরে স্বতন্ত্র ক্যান্সার ও কিডনি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানান মন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপি। সরকারের এ মেয়াদেই সিলেটে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় পূর্ণাঙ্গ রূপ পাবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতার কারণে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য সেবা সারা বিশ্বে প্রশংসিত হচ্ছে। স্বাস্থ্যসেবাকে নিয়ে সরকার আরও সুনাম অর্জন করতে চায়। তবে এক্ষেত্রে অনেক চ্যালেঞ্জ রয়েছে।’

অধ্যাপক ডা. জাহিদ মালেক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চিকিৎসকদের সবধরণের সুযোগ সুবিধা দিচ্ছেন। গ্রামের মানুষও এদেশের নাগরিক। তাদের সমান অধিকার রয়েছে। তাদের সেবা নিশ্চিত করতে হবে। চিকিৎসকরা মানুষের জীবন রক্ষার জন্য কাজ করেন। এরপরও যেসব অপবাদ রয়েছে আন্তরিক সেবার মাধ্যমে তা ঘুচাতে হবে।

চিকিৎসকদের সুরক্ষার লক্ষ্যে স্বাস্থ্য সুরক্ষা আইন প্রণয়নের প্রক্রিয়ার কথা উল্লেখ করেন তিনি। বলেন, সংসদে এটি পাশ হয়ে গেলে অনেক সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

দেশে কোন স্টোর ম্যানেজমেন্ট নেই উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, হাসপাতালের বর্জ্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। আমাদের হাসপাতালগুলোতে ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম নেই। সবমিলিয়ে স্বাস্থ্যক্ষেত্রে অনেক সমস্যা রয়েছে। এসব সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে আমরা ডিপিপি তৈরি করছি। সবধরণের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে আগামী পাঁচবছরে প্রতিটি দ্বোরগোড়ায় চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করা আমাদের লক্ষ্য।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই আমাদের ছেলেমেয়েরা উন্নত শিক্ষা গ্রহণ করুক। এজন্য আসনসংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। গত পাঁচ বছরে সরকার ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের উদ্যোগ গ্রহণ করে। সিলেটে নতুন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে।

আগামী পাঁচ বছরে সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রক্রিয়া বাস্তবায়ন হবে জানিয়ে তিনি বলেন, মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। একজন ভিসি নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। জমি অধিগ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। আশা খুব শিগগিরই জমি অধিগ্রহণ করে বিশ^বিদ্যালয়ের কাজ শুরু হবে।

সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে একটি এমআরআই মেশিন দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এ হাসপাতাল সিলেট অঞ্চলের মানুষের সেবা পাওয়ার শেষ আশ্রয়স্থল। কলেজে শিক্ষক সংকট আছে বিষয়টি আমরা দেখবো। শিক্ষার মান বাড়াতে বেসিক বিষয়ের শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া ও স্বাস্থ্যসহকারি নিয়োগের কথা বলেন তিনি।

দেশবিদেশে শেখ হাসিনার বাংলাদেশের চিকিৎসাসেবার প্রশংসার কথা উল্লেখ করেন মন্ত্রী। বলেন, কমিউনিটি হেলথ কমপ্লেক্সের মাধ্যমে সকল শ্রেণিপেশার মানুষের সেবা নিশ্চিত করার যে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার তা বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে। এমনকি ভারতের তুলনায় বাংলাদেশের চিকিৎসাসেবা উন্নত বলেও মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

তিনি আরও বলেন, কমিউনিটি হেলথ কমপ্লেক্সগুলোতে বিনামূল্যে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। আমরা পরিকল্পনা নিয়েছে, অচিরেই কমিউনিটি চিকিৎসা সেবা আরো উন্নত করবো। এজন্য কমিউনিটি ক্লিনিকের আকার বড় করা হবে। ঔষধের সংখ্যাও বাড়ানো হবে। কমিউনিটি ক্লিনিকে ডেলিভারি সেবা চালু করার পরিকল্পনাও রয়েছে বলে জানান স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী অধ্যাপক ডা. জাহিদ মালেক এমপি।

ডা. আজিজুর রহমান রুম্মানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য সচিব জিএম সালেহ উদ্দিন, সিলেট মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ের ভিসি ডা. মুর্শেদ আহমদ চৌধুরী, বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন সিলেটের সভাপতি ডা. রোকন উদ্দিন আহমদ, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) সিলেটের সভাপতি ডা. এম এ আজিজ, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, ওসমানী মেডিকেল কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সৌরভ সরকার, সাধারণ সম্পাদক সজল চক্রবর্তী ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুব হৃদয় প্রমুখ।

পরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতাল ও শহীদ ডা. শামসুদ্দিন আহমদ মা ও শিশু হাসপাতাল পরিদর্শন করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ