বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৪৮ পূর্বাহ্ন

দয়া করে অজ পাড়া গাঁয় বলবেন না: পরিকল্পনামন্ত্রী

দয়া করে অজ পাড়া গাঁয় বলবেন না: পরিকল্পনামন্ত্রী

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক : দয়া করে গ্রামকে অজ পাড়া গাঁয় বলবেন না বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় রাজধানী লেকশোর হোটেলে সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ কর্তৃক আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

এম এ মান্নান বলেন, অনেক দেখি গ্রামের কথা বলতে গিয়ে অজ পাড়া গাঁয় বলেন। দয়া করে অজ বলবেন না। অ মানে অসভ্য। আমাদের এখন কোনো অজো পাড়া গাঁয় নেই। আপনারা গাঁয়ে গিয়ে দেখে আসুন। মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়েছে। গ্রামের চিকিৎসা সেবার মান বেড়েছে। বাচ্চারা ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে যাচ্ছে। এসবতো অস্বীকার করা যাবে না। এ সরকারের উন্নয়ন এসব। গ্রামের কমিউনিটি হাসপাতালে আমরা ৩৫টি ঔষুধ বিনা মূল্যে দিচ্ছি। সবাইকে উন্নয়নে নজর দিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে হবে।

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, শিক্ষাখাতে দুই একজন মানুষের দুর্নীতির জন্য গেলো গেলো রব উঠে। এটা ঠিক না। একমাত্র প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমলেই শিক্ষাখাতে এতো বিনিয়োগ হচ্ছে। এসব উন্নয়নের বিষয়েও আলোচনা করতে হবে। দুর্বলতাগুলোকে যেমন সামনে আনতো হবে ঠিক তেমনি উন্নয়নের বিষয়গুলোও সামনে রাখতে হবে। ধর্মনিরপেক্ষ অসাম্রদায়িকতার দিকে আমরা কোনো আপোষ করবো না। আমার সুষমের উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাবো। উন্নয়নের জন্য সকলকেই এসব বিষয়ে ভাবা উচিত।

গণস্বাস্থ্যের ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আইন মানুষকে রক্ষা করে। কিন্তু এখন আইন হয়ে গিয়েছে নির্যাতনের অস্ত্র। আওয়ামী লীগ ২০০৮ সালে নির্বাচনী ম্যানুফেস্টে বলেছিলো বিচার বহির্ভূত হক্যাকাণ্ড বন্ধ হবে। কিন্তু তা হয়নি। শুধু ডাক্তারদের কর্মস্থানে পাওয়া যায় না এমন কথা উঠছে কেন। বিচারকদের অবস্থা কি? বিচারকরা বৃহস্পতিবার সকালে কর্মস্থান ছাড়েন আর ফেরেন সোমবার বিকেলে। কারণ তাদের স্ত্রী সন্তানরা ঢাকায় থাকেন। একই অবস্থা ডিসি ও ইউএনওদেরও। তাদের হেদায়েত করা শেখাতে হবে। প্রধানমন্ত্রী দেশের ভালোই চাচ্ছেন কিন্তু তা তাঁর আশেপাশের মানুষরা তাঁকে ভুল পথে পরিচালিত করছেন।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক রোহমান সোবহান,সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা শিক্ষাবীদ রাশেদা কে চৌধুরী, বিএমএ এর সাবেক সভাপতি রশিদিন মাহবুব, সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ফাহমিদা খাতুন, সিপিডির সাবেক নির্বাহী পরিচালক ও সম্মানীয় ফেলো মোস্তাফিজুর রহমান।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ