বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ০৯:৩৮ অপরাহ্ন

ধর্মপাশায় গ্রামীণ সেতু নির্মানে অনিয়ম, ত্রাণ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘোষ বাণিজ্যের অভিযোগ

ধর্মপাশায় গ্রামীণ সেতু নির্মানে অনিয়ম, ত্রাণ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘোষ বাণিজ্যের অভিযোগ

নিউজটি শেয়ার করুন

ধর্মপাশা প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলা ত্রাণ ও দূর্যোগ ব্যাবস্থাপনা কর্মকর্তা প্রজেশ দাসের বিরুদ্ধে সেতু নির্মান কাজে ঘোষ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। ত্রাণ ও দূর্যোগব্যাবস্থাপনা অধিদপ্তরের আওতায় ‘বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী প্রকল্পের ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে গ্রামীণ সংযোগ রাস্তায় ৬ টি সেতু নির্মাণ কাজে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যাবহার করে দায়সারা ভাবে কাজ করা হচ্ছে। বাহির এলাকার ঠিকাদার কাজ পেয়ে স্থানীয় ঠিকাদারের নিকট বিক্রি করে দিয়েছে বলে ও জানা গেছে।

এসব অনিয়ম ধামাচাপা দিয়ে বিল ছাড় দেওয়া মর্মে ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মোটা অংকের উৎকোচ গ্রহনের অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগ করে এক ঠিকাদার বলেন, ওই কর্মকর্তা যোগদান করার পর থেকেই সেতু নির্মান কাজে চাপ প্রয়োগ করে মোটা অংকের টাকা আদায় করে আসছেন বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। উপজেলা ত্রাণ ও দূর্যোগ ব্যাবস্থাপনা অধিদপ্তর সুত্রে জানা গেছে,ত্রাণ ও দূর্যোগ ব্যাবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীর গ্রামীণ সংযোগ রাস্তায় সেতু নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে ধর্মপাশা উপজেলার বিভিন্ন গ্রামীণ সংযোগ রাস্তায় ৬টি সেতু নির্মাণের জন্য ১কোটি ৫৯ লাখ টাকা বরাদ্ধ দেয় সরকার।চলতি বছরের গত ১৩ ফেব্রুয়ারি তারিখে পৃথক দরপত্রের মাধ্যমে ৬ টি সেতুর টেন্ডার আহবান করা হয়। ৫% নিম্নদরে সেতু নির্মানের কাজ পেয়ে ঠিকাদারগণ চুক্তিবদ্ধ হওয়ার পর কর্তৃপক্ষ পৃথক ৬ টি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে সেতু নির্মাণের জন্য ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ তারিখে কাজ শুরু করে ১৫ এপ্রিল কাজ সম্পন্ন করার নিমিত্তে কার্যাদেশ প্রদান করেন।

উপজেলার ৬ টি সেতু হলো.বাইরকান্দা,বাদেহরিপুর,বাবুপুর, রাধানগর, চিকারখাল ও খয়েরদিরচর গ্রামের সংযোগ রাস্তায় ব্রীজ নির্মান। অভিযোগ রয়েছে, সেতুগুলোর নির্মান কাজ শুরু হওয়ার পর থেকেই নিম্নমানের বালু পাথর দিয়ে সেতু নির্মানের অভিযোগ উঠে। সরজমিন গিয়ে দেখা যায়, বালি ও মাটি মিশ্রিত পাথর দিয়ে চলছে খয়েরদিরচর গ্রামের সেতুর কাজ। এক নির্মান শ্রমিক বলেন অন্য সাইড থেকে ফেরত আসা সামগ্রী এখানে রাখা হয়েছে। এগুলো দিয়ে ব্রীজের কাজ করা হচ্ছে না। বল্লি ফাইলিং করে বেইজ স্থাপন করা ও ব্রীজের দুপাশে সংযোগ রাস্তা পর্যন্ত প্যালাসাইটিং করার কথা রয়েছে বলে জানা গেছে। কিন্তু কাদা মাটির উপর সিসি ডালাই করে বেইজ স্থাপন করা হয়েছে। সংযোগ রাস্তা পর্যন্ত শুধু মাটি ভরাট করা হয়েছে। ঘিরইল গ্রামের রমজান আলী বলেন, খুবই নিম্নমানের বালু পাথর দিয়ে করছে চিকারখাল সেতুর কাজ।একই অভিযোগ বাদেহরিপুর গ্রামের সমরাজ মিয়ার। জানা গেছে উপজেলা ত্রাণ কর্মকর্তা প্রজেশ দাস ও উপসহকারী প্রকৌশলী মাহমুদুল হাছান ও ঠিকাদারদের মধ্যে মোটা অংকের টাকার চুক্তি হয়। যার ফলে ব্যাপক অনিয়ম করা হয় সেতু নির্মান কাজে।

বিল পাশ করে দেওয়ার ব্যাপারে বরাদ্ধ অনুপাতে প্রতি ঠিকাদারের নিকট থেকে ৩ লাখ থেকে ৫ লাখ টাকার মধ্যে চুক্তি হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট একাধিক ঠিকাদারের নিকট জানা গেছে। বাদেহরিপুর, রাধানগর ও খয়েরদিরচর গ্রামের সেতুর কাজ ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। বাইরকান্দা,চিকারখাল ও বাবুপুর গ্রামের সেতুর কাজ চলছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ঠিকাদার জানান, যে পরিমান কাজ করা হচ্ছে তাতে তেমন অনিয়ম করা হয়নি।তবে ত্রান কর্মকর্তা ও উপসহকারী প্রকৌশলীর সাথে কিছু কাজ কম করার কথা রয়েছে। তা থেকে যে টাকা উদৃত্ত থাকে তার সিংহভাগ টাকা ত্রাণ কর্মকর্তাকে দেওয়া হবে।

তবে ঢাকাস্থ ‘ প্রধান কার্যালয়ের কর্মকর্তাসহ উপরোস্থ কর্মকর্তাদের দোহাই দিয়ে ঠিকাদারের নিকট থেকে মোটা অংকের টাকা নেন উপজেলা ত্রাণ কর্মকর্তা। এ ব্যাপারে উপসহকারী প্রকৌশলী মাহমুদুল হাছান বলেন,খয়েরদিরচর গ্রামের নির্মানাধীন ব্রীজের পাশে অন্যকাজের ফেরত আসা ব্যাবহারের অযোগ্য বালিমিশ্রিত কিছু পাথর রেখেছিল এগুলো ব্যাবহার না করার জন্য বলেছি। উপজেলা ত্রাণ ও দূর্যোগব্যাবস্থাপনা কর্মকর্তা প্রজেশ দাস বলেন,সেতু নির্মান কাজের বিল অনুমোদন হয় ঢাকা ত্রাণ ও দূর্যোগ ব্যাবস্থাপনা অধিদপ্তর থেকে।ঠিকাদারদের সাথে কোন রকমের লেনদেন করা বা বিল ছাড় দেয়ার ব্যাপারে উপজেলা অফিসের কোন সুযোগ নেই।অনিয়ম হলে সরজমিন গিয়ে দেখব।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.ওবায়দুর রহমান বলেন, নিম্নমানের বালু পাথর দিয়ে বাবুপুর গ্রামের সেতুর ঢালাই করছে এমন অনিয়মের অভিযোগের ভিত্তিতে কাজ বন্ধ করা হয়।নির্মান সামগ্রী পরিবর্তন করে মান সম্মত বালু পাথর দিয়ে ঢালাই করার নির্দেশ দেয়া হয়।অভিযোগের ভিত্তিতে প্রতিটি সেতুর অনিয়ম খতিয়ে দেখে বিল প্রদান করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ