বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ০৯:৩৪ অপরাহ্ন

ধোপাদিঘীরপাড়ে অবৈধ মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড গুড়িয়ে দিয়েছে সিসিক

ধোপাদিঘীরপাড়ে অবৈধ মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড গুড়িয়ে দিয়েছে সিসিক

নিউজটি শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক :  সিলেট নগরীর ধোপাদিঘীরপার সড়কের একপাশে ওসমানী শিশু উদ্যান অন্য পাশে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আবদুল মোমেনের বাসভবন। একই সাথে এ সড়ক দিয়েই বন্দর বাজার জিরোপয়েন্টে যাতায়ত করেন যাত্রীসাধারণ। কিন্তু ব্যস্ততম এ সড়কের শিশুপার্ক অংশ দখল করে রেখেছে লেগুনা চালকরা।

দীর্ঘদিন ধরে তারা সেখানে অস্থায়ীভাবে স্ট্যান্ড বানিয়ে রাখলেও তাদের সরাতে কোন উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। তারা এমনভাবে সড়ক দখল করে রেখেছিল, যে কারণে দুই লেনের সড়কের প্রশস্থততা কমে এক লেনেরও ছোট আকার ধারণ করেছিল। ফলে কোন ভাবেই এ পয়েন্টের যানজট নিয়ন্ত্রণ সম্ভব হচ্ছিল না।

অবশেষে সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক এ মোড় থেকে অবৈধ স্ট্যান্ড সরিয়ে দিয়েছেন। সেখানে টানিয়ে দিয়েছেন ‘পার্কি নিষেধ’ সম্বলিত সাইনবোর্ডও। মেয়রের এমন কাজের প্রশংসা করলেও ফের এ স্থান দখল করে লেগুনা স্ট্যান্ড গড়ে ওঠার শঙ্কায় রয়েছেন নগরবাসী। তাদের মতে, এখান থেকে স্ট্যান্ড উচ্ছেদের মাধ্যমে নগরের প্রধান সড়ক দখলমুক্ত করলেন মেয়র আরিফ। কিন্তু ফের যেন লেগুনা- মাইক্রোবাস চালকরা স্থানটিতে বসতে না পারেন সেদিকে যেন তিনি নজর রাখেন।

মঙ্গলবার বিকেলে মহানগর ট্রাফিকের সহযোগিতা নিয়ে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী নগরীর বন্দরবাজার, কোর্ট পয়েন্ট, মধুবন মার্কেট, ধোপাদিঘীরপারএলাকাসহ একাধিক স্থানে ‘পার্কিং নিষেধ’ লেখা সম্বলিত সাইন বোর্ড টানিয়ে দেন। এসময় অবৈধ পার্কিং এর অভিযোগে বেশ ক’টি যানবাহনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।

এ ব্যাপারে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ‘গত কয়েক বছরে নগরে জনসংখ্যা বাড়ার পাশাপাশি যানবাহনের সংখ্যা বেড়েছে প্রায় চার গুণ। সে হিসেব মতে রাস্তার প্রশস্ততা বড়ানো হলেও অবৈধ গাড়িস্ট্যান্ড ও অবৈধ পার্কিংয়ের কারনে যানজট যেন পিছু ছাড়ছেনা নগরবাসীর। যানজটে ভোগান্তি ও যানবাহনের শব্দে অতিষ্ঠ নগরবাসীকে মুক্তি দিতে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং এবং অবৈধ গাড়ি স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করা হচ্ছে।’

যানজট নিরসনের লক্ষে হকার উচ্ছেদের পাশাপাশি অবৈধ গাড়ি স্ট্যান্ডের বিরুদ্ধে ধারাবাহিক এ অভিযান চলবে বলেও জানান তিনি। অভিযানকালে রাস্তা দখল করে ব্যবসা করার অপরাধে বিপূল পরিমান মালামাল ও আসবাবপত্র জব্দ করেন।

অভিযানে সিলেট মেট্রোপলিটন ট্রাফিকের উপ পুলিশ কমিশনার মো. ফয়সল মাহমুদ, সিসিকের সচিব মোহাম্মদ বদরুল হক, ম্যাজিস্ট্রেট বিপূল কর্মকার, এসএমপি পুলিশের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার(ট্রাফিক) নিকুলিন চাকমা ও জ্যোতির্ময় সরকার সহ বিপূল সংখ্যক পুলিশ সদস্য ও সিসিকের অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ