মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ০১:০০ পূর্বাহ্ন

নয়াপল্টনে সংঘর্ষ : ৩ টি মামলা দায়ের, গ্রেপ্তার ৫০

নয়াপল্টনে সংঘর্ষ : ৩ টি মামলা দায়ের, গ্রেপ্তার ৫০

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক : নয়াপল্টনে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সাথে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসকে আসামি করে তিনটি মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। এছাড়া এ ঘটনায় পুলিশ এ পর্যন্ত অন্তত ৫০ জনকে আটক করেছে।

পল্টন থানায় এই তিনটি মামলা দায়ের হয়েছে বলে বুধবার রাতে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন থানার ওসি মাহমুদুল হাসান।

তিনি বলেন, “গাড়ি ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ, রাস্তা অবরোধ, পুলিশকে মারধর, সরকারি কাজে বাধার অভিযোগে এসব মামলা হয়।”

মামলাগুলোতে বিএনপি নেতা মির্জা আব্বাসকেও আসামি করা হয়েছে জানিয়ে ওসি বলেন, এসব মামলায় অন্তত ৫০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নির্বাচন সামনে রেখে মনোনয়ন ফরম বিক্রির কার্যক্রমের মধ্যেই ঢাকার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বুধবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে পুলিশের সঙ্গে দলটির নেতাকর্মীদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এসময় পুলিশের দুটি গাড়ি পোড়ানো হয়, ভাংচুর করা হয় অনেক গাড়ি।

পুলিশ দাবি করেছে, বিএনপি নেতা-কর্মীরা বিনা উসকানিতে তাদের উপর হামলা চালালে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল ও আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচন বানচালের জন্য পরিকল্পিতভাবে সন্ত্রাস চালিয়েছে বিএনপি।

ঢাকার পুলিশ কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলেছেন, মির্জা আব্বাসের মিছিল থেকে এই হামলা চালানো হয়েছিল।

তিনি বলেন, “স্যার, মির্জা আব্বাসকে বার বার বলা হয়েছে লোকজন নিয়ে সেখানে না আসতে। তারপরও তারা লোকজন নিয়ে আসে। মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে মিছিলটি আসার পর গণ্ডগোল শুরু হয়।”

এদিকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দাবি করেছেন, নির্বাচন বানচালের জন্য সরকার ও নির্বাচন কমিশনের যোগসাজশে বিনা উসকানিতে তার দলের নেতা-কর্মীদের উপর হামলা হয়।

মির্জা আব্বাসকে দায়ী করার প্রতিক্রিয়ায় ফখরুল বলেন, “ঘটনার পর সরকারের একটি নির্দিষ্ট মহল অভিযোগ করল যে, মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে হামলা হয়েছে। এটা অত্যন্ত সাজানো একটা পরিকল্পনা। সেই পরিকল্পনা হচ্ছে, এই সাজানো হামলা চালিয়ে বিএনপিকে দায়ী করে আবার বিএনপির ওপর হামলা-নির্যাতন শুরু করা।”

পুলিশের গাড়িতে হামলায় হেলমেটধারী যেসব যুবকদের দেখা গেছে, তারা ছাত্রলীগের বলেও দাবি করেন বিএনপি মহাসচিব।

তিনি বলেন, “আমরা যতটুকু জানতে পেরেছি এই হেলমেট পরা লোকজন ছাত্রলীগের। অসমর্থিত খবরে আমরা এটা জানতে পেরেছি। আজকের এই হামলা সম্পূর্ণ পূর্ব পরিকল্পিত। পুলিশ আক্রমণ করেছে এবং তাদের ছত্রছায়ায় গাড়িতে আগুন লাগিয়েছে হেলমেট বাহিনী।”

ঘটনার পর পুলিশ বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য হেলালুজ্জামান তালুকদার লালুকেও গ্রেপ্তার করে বলে ফখরুল জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ