সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৫:৪১ অপরাহ্ন

প্রথম টি-টুয়েন্টিতে উইন্ডিজের দাপুটে জয়

প্রথম টি-টুয়েন্টিতে উইন্ডিজের দাপুটে জয়

নিউজটি শেয়ার করুন

স্পোর্টস ডেস্ক : লো-স্কোরের ম্যাচ কিভাবে জিততে হয়-সেটা করে দেখালো ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বাংলাদেশের গড়া ১২৯ রানের স্কোর টপকে গেলো মাত্র ১০.৫ ওভারে হাতে ৮ উইকেট অক্ষত রেখে। একতরফা ভঙ্গিতে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টুয়েন্টি ৮ উইকেটে জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ এগিয়ে গেল ১-০ তে। সেই সঙ্গে টি-টুয়েন্টির পাওয়ার প্লেতে সর্বোচ্চ ৯১ রানের বিশ্বরেকর্ডও ছুঁয়ে ফেললো!

ব্যাটে-বলে ¯্রফে বাংলাদেশকে উড়িয়ে দিয়ে এই ম্যাচ জিতলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টি-টুয়েন্টিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কেন প্রিয় ফরমেট বলা হয়-তার প্রমান দেখালো তারা সিরিজের প্রথম ম্যাচে।

সিলেট আর্ন্তজাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিরিজের প্রথম ম্যাচে টসে জিতে বাংলাদেশ ব্যাটিং বেছে নেয়। কিন্তু পাওয়ার প্লে তেই সাকিব আল হাসান ছাড়া বাকি টপঅর্ডার ব্যাটসম্যানদের ‘পাওয়ার’ই শেষ! সাকিব একপাশ আঁকড়ে রেখে ৪৩ বলে ৬১ রানে কার্যকর ইনিংস খেলেন। ব্যাটিং বলতে যা বোঝায় সেটা সাকিব ছাড়া এই ম্যাচে বাংলাদেশের আর কোন ব্যাটসম্যান দেখাতেই পারেননি। তামিম, লিটন, সৌম্য ও মুশফিক সবাই ডাবল ডিজিটে পৌছানোর আগেই আউট! ওয়েস্ট ইন্ডিজ পেসারদের সামাল দিতেই ব্যর্থ দলের ব্যাটসম্যানরা। ইনিংসের পুরো ওভারের কোটাও পুরণ করতে পারেনি বাংলাদেশ। শুরুর মতো শেষের দিকেও ব্যাটসম্যান চটজলদি আউট। মাঝের সময়টুকুতে সাকিব আল হাসান একপাশ ধরে লড়াই চালিয়ে যাওয়ায় স্কোর তিন অংকের ঘর ছাড়ায়।

ভুল শট নির্বাচন। টাইমিংয়ে গোলযোগ। ভুল বোলারকে আক্রমণ। ব্যাটিং পরিকল্পনা ভুলে ভরা। এমনসব ভুলের ভারে ভারাক্রান্ত বাংলাদেশের ইনিংস থেমে যায় ১৯ ওভারে। স্কোরবোর্ডে সঞ্চয় মাত্র ১২৯ রান।

টি-টুয়েন্টিতে এত কম স্কোর নিয়ে প্রতিপক্ষকে চ্যালেঞ্জ জানানো যায় না। আর জয়ের সেই কাজটা আরো মামুলি করে দেয় শাই হোপের ঝড়ো ব্যাটিং। মাত্র ১৬ বলে হাফসেঞ্চুরি তুলে নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ওপেনার জানিয়ে দিলেন ওয়ানডে সিরিজের ব্যাটিংয়ের ধার টি-টুয়েন্টিতে আছে তার! মেরে কেটে ব্যাট চালিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ পাওয়ার প্লেতে ১ উইকেটে ৯১ রান তুলে নেয়। টি-টুয়েন্টির পাওয়ার প্লেতে সবচেয়ে বেশি রান তোলার বিশ্বরেকর্ড স্পর্শ করলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ এই ম্যাচে।

২৩ বলে ৫৫ রানের টর্নেডো ইনিংসের পর শাই হোপ ফিরে গেলে ব্যাট হাতে ঝড় তোলার বাকি কাজটুকু সম্পন্ন করেন নিকেলাস পুরান ও কিমো পল। পুরান ১৭ বলে অপরাজিত ২৩ রান করেন। আর অলরাউন্ডার কিমো পল মাত্র ১৪ বলে ৩ ছক্কা ও ১ বাউন্ডারিতে হার না মানা ২৮ রান তুলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে দাপুটে জয় এনে দেন।

বোলিংয়ে এই ম্যাচে বাংলাদেশের যে ভয়াবহ সময় কাটলো সেটা খুব দ্রæতই ভুলে যেতে চাইবে তারা। স্পিনারদের ওপর যেন ভীষণ রকম ক্ষোভ নিয়ে নেমেছিলো ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যানরা এই ম্যাচে। সাকিব আল হাসান তার ৩.৫ ওভারে খরচা করেন ৩২ রান। আর অফস্পিনার মেহেদি মিরাজের ২ ওভারে ব্যয় ৩৭ রান! আবু হায়দার ও মুস্তাফিজ নিজেদের প্রথম ওভারে ১৫ করে রান দেয়ার পর তারা আর বোলিংয়ে আসার সুযোগই পেলেন না! আরেক পেসার সাইফুদ্দিনের অবস্থাও তেমনই!

সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ মিরপুরে ২০ ডিসেম্বর।

স্কোরকার্ড: বাংলাদেশ: ১২৯/১০ (১৯ ওভারে, তামিম ৫, লিটন ৬, সৌম্য ৫, সাকিব ৬১, মুশফিক ৫, মাহমুদউল্লাহ ১২, আরিফুল ১৭, সাইফউদ্দিন ১, মেহেদি ৮, আবু হায়দার ১*, মুস্তাফিজ ০, অতিরিক্ত ৮, ক্যাটরল ৪/২৮, কিমো পল ২/২৩, থমাস ১/৩৩, ব্রাথওয়েট ১/১৩, অ্যালেন ১/১৯)। ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ১৩০/২ (১০.৫ ওভারে, লুইস ১৮, হোপ ৫৫, পুরান ২৩*, পল ২৮*, অতিরিক্ত ৬, সাইফউদ্দিন ১/১৩, মাহমুদউল্লাহ ১/১৩)। ফল: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৮ উইকেটে জয়ী। ম্যাচ সেরা: শেল্ডন ক্যাটরল। দ্বিতীয় ওয়ানডে: ২০ ডিসেম্বর, মিরপুর

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ