মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০২:৪২ অপরাহ্ন

প্রাথমিক সহকারি শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতনের দাবিতে মানবন্ধন

প্রাথমিক সহকারি শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতনের দাবিতে মানবন্ধন

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত সিলেট :: প্রাথমিক সহকারি শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতনসহ ৪ দফা দাবিতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এক মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় সিলেট জেলার সহকারি শিক্ষকদের পক্ষ থেকে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

৪ দফা দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- ২০১৪ সালের ০৯ মার্চ থেকে ১১তম গ্রেডে সহকারি শিক্ষকদের বেতন পুনঃনির্ধারণ, নিয়োগবিধি পরিবর্তন করে পুরুষ ও মহিলা নির্বিশেষে সহকারি শিক্ষকপদে শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক ডিগ্রী নির্ধারণ করা, সরাসরি প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বন্ধ করে সহকারি শিক্ষক পদকে প্রধান শিক্ষক পদের ফিডার পদ ধরে শতভাগ পদোন্নতির বিধান চালুকরণ ও সিইনএড/ডিপিএড/বিএড প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত স্কেল সহ উন্নীত স্কেলে শিক্ষকদের বেতন উচ্চতর ধাপে নির্ধারণ করা।

সিলেট জেলার সহকারী শিক্ষক নেতা সোহেল আহমদের সভাপতিত্বে ও বিমল দাসের পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন- শিক্ষক নেতা সঞ্জীব দাস, গোলাম মোস্তফা, নিহার রঞ্জন বর্ধন, আবুল কালাম আজাদ, জামাল হোসেন, পিন্টু চক্রবর্তী, এমরান আহমদ, বাবলু রঞ্জন দাস, নিলকণ্ঠ দাস, আব্দুল হাই, মৃদুল দেবনাথ, রাশেদ নেওয়াজ, মনোজ দাস, সৈয়দ কবির আহমদ, অনন্ত দাস, রিপন আহমদ, তাহির উদ্দিন, আশিকুর রহমান, মাহমুদুল হাসান, লোকমান হোসেন খান, খাজা আজির উদ্দিন, তাহির উদ্দিন, জুবায়ের আহমদ, হুমায়ুন আহমদ, তাজুল ইসলাম, সুরঞ্জিত চক্রবর্তী, আয়েশা আক্তার, হাফছা আক্তার, বাহার উদ্দিন, শান্ত রায়, সুজিত রায়, মিজানুর রহমান, বিপ্লব দেবনাথ, জুয়েল ভৌমিক, আরিফ নিরদ, আরিফুল ইসলাম, মখলিছুর রহমান, আলমাছ আলী, মাছুদ পারভেজ, জসিম উদ্দিন, আফসার জাহান, বিনয় পণ্ডিত, তমা দে, সুলতান আহমদ খান, বুলবুল আহমদ, হাসান ইমরান, সুশান্ত শেখর রায়, আব্দুল ওয়াহিদ, সুজিত চক্রবর্তী, সুধাংশ চক্রবর্তী, দুলাল দেব, জয়নাল আবেদীন, রফিকুল মুরসালিন, আদরি রানী দাস, ইমাম উদ্দিন, মাজহারুল ইসলাম, আল-আমিন, সেলিম আহমদ, কলিদেব, নিহারিকা সিংহা, হামিদা বেগম, মলয় কান্তি দেব, সুপ্রিয়া রানী দাস, মায়া রানী দাস, সেলিম আহমদ, সাইফুর রহমান, পপি রায় চৌধুরী, ভাস্কর দেবনাথ, আমিনুল ইসলাম, অরূপ দেব, আব্দুল ওয়াহিদ, জাসমিন বেগম, তাসলিমা আক্তার, শিরিন বেগম, মমতা বেগম, রূপালী রানী দাস, তাহমিনা মোজাম্মেল সহ আরো শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সহকারি শিক্ষকদের বেতন ১১তম গ্রেডে পুনঃনির্ধারণ এবং ২০১৪ সালের ০৯ মার্চ থেকে কার্যকর করতে হবে। সহকারী প্রাথমিক শিক্ষকরা ২০১৪ সাল থেকে বৈষ্যমের শিকার হয়।

উলে­খ্য, ১৯৭৩ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৩৭ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করেন, তখন সহকারি শিক্ষক ও প্রধান শিক্ষকরা একই বেতন গ্রেডে ছিল। ১৯৭৭ সালে সহকারি শিক্ষকদের বেতন একধাপ নিচে চলে আসে এবং ২০০৬ সালে দুধাপ নিচে চলে আসে। সর্বশেষ ২০১৪ সালে সহকারি শিক্ষকদের বেতন তিনধাপ নিচে চলে আসে।

বক্তারা আরো বলেন, বেতন বৈষম্য নিরসন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যহত থাকবে। বক্তারা- প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নিকট অচিরেই এসব দাবী বাস্তবায়ন ও মান সম্মত শিক্ষার পরিবেশ সৃষ্টি করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে আমরা বিশ্বাস করি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ