সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৩২ পূর্বাহ্ন

‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের স্বত্ব কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে দেয়া হয়নি’

‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের স্বত্ব কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে দেয়া হয়নি’

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক: ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন,বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর স্বত্ব (মালিকানা) কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে দেয়া হয়নি, এটি দেশের জনগণের সম্পত্তি। সে কারণে স্যাটেলাইটের স্বত্ব নিয়ে যেসব কোম্পানি বা ব্যক্তিবর্গের নামে লিজ দেয়ার তথ্য খবরের কাগজ বা গণমাধ্যমে আসে, তা সত্য নয়।

বুধবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদে এ তথ্য জানান তিনি।

এর আগে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম মন্ত্রীকে প্রশ্ন করেছিলেন- বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় খবর বের হয়েছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের স্বত্ব শুধু মাত্র বেক্সিমকো ও অন্য একটি কোম্পানির কাছে বিক্রি করা আছে। কেউ যদি এ স্যাটেলাইটের সুবিধা নিতে চান তা হলে এ দুটি কোম্পানির কাছ থেকে কিনতে হবে’ এটি সত্যি কি-না? এ প্রশ্নের জবাবে মোস্তফা জব্বার বলেন, এটি জাতীয় সম্পত্তি কারও কাছে লিজ বা স্বত্ব বিক্রি করা হয়নি। এটা সত্যি নয়।

ইসরাফিল আলমের অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, ২০১০ সালের ১১ নভেম্বর থেকে এ পর্যন্ত দেশে ৫২৯৫টি ডিজিটাল সেন্টার তৈরি করা হয়েছে। এ সব সেন্টারে প্রায় ১০ হাজারে বেশি উদ্যোক্তা কাজ করছে। ২০২১ সালের মধ্যে গ্রামগঞ্জে ২০ হাজার ডিজিটাল সেন্টার তৈরি করার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান তিনি।

এ সব ডিজিটাল সেন্টারে সবার জন্য একটি ‘ওয়ানস্টপ সার্ভিস সেন্টার’ হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে এজেন্ট ব্যাংকিং চালু হয়েছে। এর মাধ্যমে অ্যাকাউন্ট খোলা, ক্ষুদ্র ঋণ প্রদান ও আমানত গ্রহণ, বিদ্যুৎ বিল গ্রহণ, পাসপোর্ট বিল গ্রহণসহ প্রয়োজনীয় নানাবিধ সেবা দেয়া হচ্ছে। অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের সব স্কুলে ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করা হবে। এসব ল্যাবে শুধু শিক্ষার্থীদের মধ্যে নয় স্কুল ছুটির পরে অন্যদেরও এ ল্যাবে শেখার সুযোগ সৃষ্টি করা যেতে পারে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে মোস্তফা জব্বার বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ নিজে মোবাইল ও ল্যাপটপ বানাচ্ছে ও রফতানি করছে। ইতোমধ্যে উন্নত মানের মোবাইল ফোন উৎপাদনের জন্য ৬টি কারখানা চালু হয়েছে। আরও ৬টি অবিলস্বে চালু হচ্ছে। এখন আর মোবাইল বিদেশ থেকে আমদানি করতে হবে না। আমরা এদেশে কম্পিউটারের মাদার বোর্ড উৎপাদনের চেষ্টা করছি। তেমনি আমরা ল্যাপটপ তৈরি করার জন্য আমরা কারখানা চালু করছি। সেখানে মাদার বোর্ড তৈরি হবে।

সংসদে সরকারি দলের সদস্য মো. নজরুল ইসলাম বাবুর এক তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন,২০২৩ সালের মধ্যে ডিজিটাল সংযোগ স্থাপন প্রকল্পের মাধ্যমে ২৫ হাজার ৫শ’ শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপনের পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে।

বিরোধীদলের অপর সদস্য মো. মুজিবুল হকের তারকা চিহ্নিত এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, এলআইসিটি প্রকল্পের আওতায় বিশ্বমানের প্রশিক্ষণে ৩১ হাজার ৯৩০ জন আইটি প্রশিক্ষিত দক্ষ মানব সম্পদ তৈরি করা হয়েছে। প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের মধ্যে টপ-আপ আইটিতে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছে ১০ হাজার ৫৮৫ জন, ফাউন্ডেশন স্কিলসে ২০ হাজার ৩৬৯ জন এবং ফাস্ট ট্র্যাক ফিউচার লিডার-এ ৯৭৬ জনকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। অর্থ্যাৎ সর্বমোট ৩১ হাজার ৯৩০ জন তরুণ-তরুণীর প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়েছে। যার মধ্যে ৮ হাজার ১৫১ জনের কর্মসংস্থান হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ