বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ১০:২৬ অপরাহ্ন

বিদেশিরা ঋণের ব্যাগ নিয়ে সচিবালয়ে ঘুরে: পরিকল্পনা মন্ত্রী

বিদেশিরা ঋণের ব্যাগ নিয়ে সচিবালয়ে ঘুরে: পরিকল্পনা মন্ত্রী

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক :বিদেশিদের কাছ থেকে বাংলাদেশ এখন আর ঋণ নেয় না। দাতা সংস্থাগুলো জোর করে ঋণ দিতে চায় বলে দাবি করছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের বাজেটের শক্তিশালী দিক হচ্ছে, এখন আমরা বিদেশিদের কাছ থেকে ঋণ নিচ্ছি না। রোজ সকালে সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রীর বারান্দায় বিদেশিরা (বিশ্বব্যাংক, আইএমএফসহ দাতা সংস্থার লোকজন) ব্যাগ হাতে নিয়ে ঘুরছেন। বলছেন ঋণ নেন, ঋণ নেন, কম সুদে ঋণ নেন, ১ শতাংশ সুদে ঋণ নেন। তারপরও আমরা ঋণ নিচ্ছি না। আমাদের খাতির করে জোর করে ঋণ দিচ্ছে। তাদের রিকোয়েস্টে বাজেটে সর্বোচ্চ ১ কিংবা ২ শতাংশ সুদে ঋণ নিচ্ছি।

রোববার (১২মে) রাজধানীর ধানমন্ডির ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ‘২০১৯-২০ অর্থ বছরের বাজেট’ শীর্ষক সেমিনারের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

উন্নয়ন হলে বৈষম্য বাড়ে উল্লেখ করে পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, যদি সকল সম্পদ রাষ্ট্রের আওতায় আনা যেতো তাহলে সকল সম্পদের সমানভাগ করা যেতো। এটা সম্ভব না। তবে দারিদ্রতা কমাচ্ছি। গত ১০ বছরে ৪০ শতাংশ দারিদ্রতা থেকে ২০ শতাংশে নেমে এসেছে। আস্তে আস্তে দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গড়বো। এটাই আমাদের লক্ষ্য।

গ্রামের বাড়ি (সিলেট) থেকে ঢাকায় আসার সময় মাঝে মধ্যে ট্রেনের ভাড়া দিতেন না বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান। তিনি বলেছেন, ৬০ বছর ধরে ট্রেনে ভ্রমণ করি। ছয় টাকার টিকিট দিয়ে সিলেট থেকে ঢাকায় এসেছি। ছোটকালে ভাড়া দিতাম না। টিটিকে কতবার ফাঁকি দিয়েছি। ভাড়া না দিয়ে ঢাকা এসেছি। ছাত্র অবস্থায় সাধারণত এ কাজটা করতাম। টিটি দেখলে বিভিন্ন বাহানায় এড়িয়ে যেতাম।

তিনি বলেন, ‘আজ সকালেও ট্রেনে বাড়ি থেকে এসেছি। ভোরে ট্রেনের দরজা খুলে গ্রামের দৃশ্য দেখেছি, কি যে ভালো লেগেছে তা বোঝাতে পারব না। উন্নয়ন হচ্ছে, দেশ এখন বদলে যাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘সরকার ক্রমান্বয়ে তামাক পণ্যে কর বসিয়েছে। এবারও কর বাড়ানো হবে। সবাইকে নিয়ে বাঁচতে হবে। সবাইকে অন্ধকূপ থেকে বেড়িয়ে আলোতে আসতে হবে। আর পিছিয়ে থাকলে হবে না।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আব্দুর সবুর খান বলেন, ‘আমাদের শিক্ষাব্যবস্থার পরিবর্তন করতে হবে। শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের গবেষণা আরও বাড়াতে হবে। ভালো মানের শিক্ষকের বড়ই অভাব রয়েছে।’

সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগের (সিপিডি) নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন বলেন, ‘বাজেটে মাত্র ২ শতাংশ বরাদ্দ থাকে শিক্ষা খাতে, আগামী বাজেটে তা বাড়িয়ে ৬ শতাংশ করা দরকার।

সময় উপযোগী শিক্ষা ব্যবস্থাও জরুরি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘প্রতি বছর সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে হাজার হাজার গ্রাজুয়েট বের হচ্ছে, কিন্তু সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে যোগ্য লোক পাওয়া যাচ্ছে না। বিদেশিরা এমডি, সিইওসহ বড় বড় পদ দখল করে আছে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সীমান্ত ব্যাংক লিমিটেডের এমডি ও সিইও মোখলেছুর রহমান, বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ হামিদুল হক খান এবং বিজনেস অ্যান্ড এন্টারপ্রেনারশিপ বিভাগের অধ্যাপক মাসুম ইকবাল।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ