রবিবার, ২৫ অগাস্ট ২০১৯, ১০:২৯ অপরাহ্ন

বিয়ানীবাজারে ছাত্রদল নেতাকে অস্বীকার করে ফেইসবুকে স্ট্যাটাস তোলপাড়!

বিয়ানীবাজারে ছাত্রদল নেতাকে অস্বীকার করে ফেইসবুকে স্ট্যাটাস তোলপাড়!

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক:  ছাত্রদল নেতা এমদাদুর রহমান ইমনকে অস্বীকার করে ফেইসবুকে স্ট্যাটাস নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে বিয়ানীবাজার উপজেলা জুড়ে।

বিয়ানীবাজার উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও বর্তমান উপজেলা ছাত্রদলের একাংশের সভাপতি ইমন।

ইমন ছাত্রদলের সাথে সম্পৃক্ত নয় বলে উপজেলা ছাত্রদলের একাংশের সভাপতি ফয়েজ আহমদ ফেইসুবকে স্ট্যাটাস দেন। তার স্ট্যাটাস নিয়ে এখন সর্বত্রে আলোচনা সমালোচনার জড় উঠেছে ।

ফয়েজ আহমদ গত সোমবার বিকেলে ৩টা ১৮ মিনিটে ফেইসবুকে ইমনে অস্বীকার করে স্ট্যাটাস দেন। তা তুলে ধরা হলো: বিয়ানীবাজার উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি ফয়েজ আহমদ তার ফেইসবুকে একটি স্ট্যাটাসে বলেন, ‘‘রাত্রে ইয়াবা ব্যাবসার সাথে জড়িত সন্দেহে উপজেলা ছাত্রদল নামদারি এক নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশবাহিনী , অত্যান্ত দুঃখের সাথে জানাচ্ছি যে, যাকে গ্রেফতার করা হয়েছে সে বিয়ানীবাজার উপজেলা ছাত্রদলের সাথে তার কোন সম্পৃক্তততা নাই ও এই ধরনের কোন লোকের সাথে ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দেরও কোন সম্পৃক্ততা নাই, আমি তার নামের আগে ডালাও ভাবে ছাত্রদল নেতা লিখার জন্য তীব্রনিন্দা জানাচ্ছি। ছাত্রদল শহীদ জিয়ার হাতে গড়া সংগঠন, ছাত্রদন কোন সন্ত্রাসী বা অপরাধী লোকের স্থান নেই। ছাত্রদলের অতীত ইতিহাস জেনে দেখুন নেশাগ্রস্ত কোন লোকের স্থান ছাত্রদলে নাই। ছাত্রদল এই ঘটনার কোন দায়ভার নিবে না এবং যাকে গ্রেফতার করা হয়েছে তার ছাত্রদলে কোন পদ-পদবী নাই। তিনি ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে এসব কথা লেখেন’’।

কিন্তু ছবি অন্য কথা বলছে, ছাত্রদল নেতার পিছনে দিকে তাকালে দেখা যাচ্ছে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদকসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বসে আছেন। গ্রেফতারকৃত ছাত্রদল নেতা ইমনের কাদে হাত রেখে, কালো শার্ট পড়ে দাড়িয়ে আছেন বিয়ানীবাজার উপজেলা ছাত্রদলের একাংশের সভাপতি ফয়েজ আহমদ। তিনি নিজেই স্ট্যাটাস দিয়ে তাকে অস্বীকার করেন অথচ ইমনের কাদে হাত রেখে পিছনে দাড়িয়ে আছেন কোনো এক বিএনপির অনুষ্ঠানে। তার ফেইসুব ওয়াল থেকে এই ছবি পাওয়া গেছে।

উল্লেখ্য গত ২২ এপ্রিল রোববার রাতে বিয়ানীবাজার থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক এমদাদুর রহমান ইমনসহ ৪জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পৌরশহরের শহীদটিলা এলাকার একটি দোকান থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয় তাদের। থানা সূত্র জানায়, রোববার রাত সাড়ে ৮টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পৌরশহরের শহীদটিলা এলাকার একটি দোকানে অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশ ৪জনকে গ্রেফতার করে।
গ্রেফতারকৃত অপর তিন জন হলেন পৌর এলাকার নয়াগ্রামের রেদওয়ান আহমদ, খাসা গ্রামের তারিন আহমদ এবং লাউতা বাউরভাগের আশরাফুল ইসলাম।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ