বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৮:০৬ পূর্বাহ্ন

বিয়ানীবাজারে পারমিট বিহীন ট্রাক্টর কেড়ে নিচ্ছে তাজা প্রাণ

বিয়ানীবাজারে পারমিট বিহীন ট্রাক্টর কেড়ে নিচ্ছে তাজা প্রাণ

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক :: বিয়ানীবাজার উপজেলার ছোটবড় সকল সড়কে অবৈধ ট্রাক্টর বেপরোয়াভাবে চলাচল করছে। এতে ভোগান্তির পাশাপাশি বাড়ছে দুর্ঘটনা- সড়কে ঝরে পড়ছে তরতাজা প্রাণ। অনিয়মতান্ত্রিক এবং অবৈধ এ যানের বিরুদ্ধে কোন আইনগত ব্যবস্থা না নেয়ায় ট্রাক্টরগুলো বেপরোয়াভাবে সড়কে চলাচল করছে। গ্রামের সড়ক ছাড়াও অভ্যন্তরিণ মহাসড়ক ও উপজেলা সড়কে চলছে নির্বিঘ্নে। স্থানীয় সড়কে দুর্ঘটনা রোধ করতে দ্রুত সময়ের মধ্যে এসব ট্রাক্টরের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান। আইনের তোয়াক্কা না করে অবাধে বিচরণ করা ট্রাক্টরগুলোর ব্যাপারে কোন মাথা ব্যাথা নেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের।

সম্প্রতি উপজেলার তিলপাড়া ইউনিয়নের দাসউরা গ্রামের রিয়াজ উদ্দিন মাস্টার, একই এলাকার মনোহর আলী ভেড়াই এ দানব যানের নিচে চাপা পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন।
বিগত কয়েকদিন আগে পারমিট বিহীন মের্সাস কামরান এন্ড ব্রাদার্স নামক দানব ট্রাক্টর বালিঙ্গা গ্রামের হতদরিদ্র লালা মিয়ার ছেলে, এই ঘাতক ট্রাক্টর নিচে চাপা পড়ে প্রাণ হারায়, এরি ধারাবাহিকতায় চলতি বছরের শুরুর দিকে উপজেলার দুবাগ এলাকায় একটি ট্রাক্টর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশের জমিতে পড়ে গিয়ে চালকের মৃত্যু হয়,

এছাড়াও বিগত কয়েক বছর থেকে এ দানব যানের কারণে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ঘটেছে ছোট বড় অনেক দুর্ঘটনা।অনেকেই হাত,পা,হাড়িয়ে পঙ্গুত্বের সাথে জীবন যাপন করতেছে।
এছাড়া শেওলা,দিঘলবাক,বালিঙ্গা,
ঘড়ুয়া চারাবই সহ এলাকায় রাস্তাঘাট অবস্থা মেরামতের পরেই, দুই একমাসের মধ্যে হয়ে উঠে মরণফাঁদ। স্কুল,কলেজ, মাদ্রাসার ছাত্র ছাত্রী সহ জনসাধারণের চলাচল করতে হচ্ছে এই দানব ট্রাক্টরের আতঙ্কে।

সরেজমিনে ঘুরে জানা গেছে, বিয়ানীবাজার উপজেলাসহ আশপাশের কয়েকটি এলাকার ইট ভাটাগুলো পুরোদমে উৎপাদনে আসার ফলে বেপরোয়া ট্রাক্টরগুলোর চাহিদা বছরের যে কোন সময়ের তুলনায় এখন অত্যধিক। আর সে সুযোগেই এখানকার প্রায় প্রতিটি সড়কেই তারা অবাধে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। সম্প্রতি তাদের বেপরোয়া গতি জনমনে ভীতির কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। যে কোন সময় ঘটতে পারে জীবনহানির মত মারাত্মক দুর্ঘটনা।

জানা যায়, কৃষি জমি চাষাবাদে গরুর লাঙ্গলের বিকল্প হিসেবে প্রায় তিন দশক পূর্বে সারা দেশের ন্যায় বিয়ানীবাজার ও আশপাশের কয়েকটি উপজেলায় আবির্ভাব ঘটে ট্রাক্টর নামক যান্ত্রিক লাঙ্গলের। কিন্তু সে কৃষি ট্রাক্টরগুলোর ব্যবহার মাঠের জমিতে খুব একটা বেশিদিন টিকেনি। অবৈধ এসব ট্রাক্টরগুলো আবাদি জমি ছেড়ে স্থান করে নিয়েছে উপজেলার গ্রামীণ প্রত্যন্ত অঞ্চল এবং বাজার কেন্দ্রিক সড়কগুলোতে।

চাষাবাদের জন্য আমদানিকৃত ট্রাক্টরগুলো পরিবহণে রূপান্তরের পর থেকেই গ্রামীণ জনপদে সর্বনাশ ঘটাতে শুরু করেছে। যদিও তা মাত্রায় ছিল সহনশীল। কিন্তু সময়ের ব্যাবধানে চাহিদা মেটাতে ট্রাকের চেয়ে ট্রাক্টরের ভাড়া তুলনামূলক কম হওয়ার কারনে যেই মাত্র তার সংখ্যাটা বহুগুণে বৃদ্ধি পেয়েছে, ঠিক তখনি তা জনসাধারণের কাছে এক ভয়ংকর দানবে পরিণত হয়েছে এসব ট্রাক্টর। এসব ট্রাক্টরের চাকায় পিষ্ট হয়ে নষ্ট হচ্ছে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার পাকা রাস্তা। গ্রামের মেঠোপথের মাটি আলগা হয়ে তা পরিণত হচ্ছে ধুলোবালিতে। বেপরোয়া গতি ও কানফাটা আওয়াজে চলাচলকারী ট্রাক্টরের কারণে গ্রামীণ জনপদে বাড়ছে শব্দ দূষণ। ব্যাহত হচ্ছে স্কুল-কলেজের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এসব ট্রাক্টরগুলোর চালকদের নেই কোন ড্রাইভিং লাইসেন্স। হাতেগোনা কয়েকদিন পুরনো চালকদের সঙ্গে থেকে নামমাত্র নেয়া প্রশিক্ষণই তাদের মূল পুজি। এরপরই তারা চলে আসে চালকের ভূমিকায়। ট্রাফিক আইন সম্পর্কে সঠিকভাবে অবগত না হওয়া এবং অনেক ক্ষেত্রে জেনেও না মানায় তাদের দ্বারা অনেক দুর্ঘটনা সংঘটিত হয়।

বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের স্নাতকোত্তর বিভাগের শিক্ষার্থী কৃষণ শুক্ল বৈদ্য বলেন, প্রতিদিন ভোরের আলো ফুটতেই উপজেলার সবকটি সড়কেই চলে এ যন্ত্রদানবের অবাধ বিচরণ। ফলে এ সড়কগুলোর অবস্থা বছরের বেশিরভাগ সময়ই অন্যান্য সড়কগুলোর তুলনায় বেশি জরাজীর্ণ থাকে এবং এদের বেপরোয়া চলাচলের কারণে ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা। এসব ট্রাক্টরগুলোর বেপরোয়া অবাধ চলাচল বন্ধে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।

এদিকে, উপজেলার সড়কগুলোতে নিয়ন্ত্রণহীন বেপরোয়া এসব ট্রাক্টরগুলো যাতে নিয়ম মেনে চলাচল করতে পারে সে ব্যবস্থা নেয়া এখন সময়ের দাবি বলে মনে করছেন সচেতন মহলের নাগরিকরা। তারা এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন।

এ ব্যাপারে বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী আরিফুর রহমান জানান, অচিরেই এর অবাধ চলাচলের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বিষয়টি জেলা আইন শৃঙ্গলা কমিটিতে উত্থাপন করবো। উর্ধ্বতন দায়িত্বশীলদের সহযোগিতায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ