শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯, ০৬:২৭ অপরাহ্ন

বিয়ানীবাজারে ব্যবসায়ী খুনে ব্যবহৃত গাড়ি সুনামগঞ্জের এক এমপি প্রার্থীর

বিয়ানীবাজারে ব্যবসায়ী খুনে ব্যবহৃত গাড়ি সুনামগঞ্জের এক এমপি প্রার্থীর

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত ডেস্ক :  বিয়ানীবাজারে ব্যবসায়ী সহিব উদ্দিন সৈবন হত্যাকাণ্ডে ব্যবহার করা হয়েছে এক এমপি প্রার্থীর গাড়ি। ওই গাড়িতেই খুন করা হয় এ ব্যবসায়ীকে। গাড়ির মালিক সুনামগঞ্জ-২ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইদুল ইসলাম মাহবুব রেজু। তিনি ২০১৭ সালের মার্চে ওই আসনে অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তার গাড়িটি মেরামতের জন্য সিলেট নগরীর আখালিয়া ঘাটের রনির গ্যারেজে দিয়েছিলেন বলে বিয়ানীবাজার থানা পুলিশ জানিয়েছে।

পুলিশ জানায়, গ্যারেজ থেকে হত্যাকাণ্ডে জড়িত জাকিরের চাচাতো ভাই দুলু গাড়িটি নিয়ে আসে। রনির গ্যারেজটি দুলুর মালিকানাধীন জায়গার ওপর। এই সুবাদে সহজেই সে গ্যারেজ থেকে গাড়ি নিয়ে আসে। গত বুধবার রাতে রনির গ্যারেজ থেকে প্রথমে গাড়িটি নেয়া হয় দুলুর বাড়িতে। সেখান থেকে বৃহস্পতিবার পরিকল্পনা অনুযায়ী আমেরিকায় পাঠানোর টাকা ফেরত দেয়ার কথা বলে ওই গাড়িতে কৌশলে তুলে নেয়া হয় ব্যবসায়ী সৈবনকে।

বৈরাগীবাজারের এক ব্যবসায়ী বলেন, এর আগে জাকির তার শ্বশুরবাড়ির এলাকা থেকে সালেহ আহমদ নামের এক আদম ব্যবসায়ীকে সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে অপহরণের চেষ্টা চালায়। পরে বিষয়টি সালিশে নিষ্পত্তি করা হয়। ব্যবসায়ী সৈবন আহমদ হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহভাজন ঘাতক জাকির হোসেন জোরপূর্বক বিয়ে করে তার আপন খালাতো বোন রিপা বেগমকে। জাকিরের স্ত্রী রিপার বড় বোন শিফা বেগম বলেন, সে আমাদের বাড়িতে এলে শুধু ঘুমিয়ে সময় কাটাত। বাড়ির বাইরে বেশি বের হতো না। বেশিরভাগ সময় চট্টগ্রামে থাকত।

সূত্র জানায়, নগরীতে অপরাধ কর্মকাণ্ড করে সে আত্মগোপনের জন্য শ্বশুরবাড়ি চলে যেত। তার স্ত্রী রিপাও বেশিরভাগ সময় বাপের বাড়ি বিয়ানীবাজার উপজেলার খশির সড়কভাংনী এলাকায় থাকেন। স্বামীর সব অপরাধ কর্মকাণ্ডের বিষয়ে তার জানা রয়েছে।

সড়কভাংনী এলাকার ব্যবসায়ী সাব্বির আহমদ জানান, প্রায়ই সে বিলাসবহুল গাড়ি নিয়ে শ্বশুরবাড়ি আসা-যাওয়া করত। যখনই শ্বশুরবাড়ি আসত প্রতিবারই গাড়ি পরিবর্তন করে নিত্যনতুন ডিজাইনের গাড়ি নিয়ে আসত। একেক সময় একেক ধরনের গাড়ি ব্যবহার করত। তার চলাফেরা ছিল রহস্যময়। শ্বশুরবাড়ি এলে সে খুব একটা ঘর থেকে বের হতো না।

বিয়ানীবাজার থানার ওসি শাহজালাল মুন্সী বলেন, আখালিয়া ঘাটের রনির গ্যারেজ থেকে গাড়িটি জাকিরের চাচাতো ভাই দুলু নেয়। পুলিশ দুলুকে খুঁজছে। সে পলাতক রয়েছে। দুলুকে পাওয়া গেলে হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে আরও খোলাসা হবে। তবে গাড়িটি এক স্বতন্ত্র এমপি প্রার্থীর বলে আমরা খবর পেরেছি।

গত বৃহস্পতিবার সিলেটের কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন আবরণী বস্ত্র বিতানের মালিক সহিব উদ্দিন সৈবন আহমদ (৫০)। পরদিন শুক্রবার ভোরে বিয়ানীবাজার-সিলেট সড়কের চারখাই গাছতলা নামক এলাকা থেকে তার গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় করা হত্যা মামলায় জাকির হোসেনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৫-৬ জনকে আসামি করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ