মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯, ০২:২২ পূর্বাহ্ন

মন্ত্রীর সময়ের অভাবে উদ্বোধন হচ্ছে না সেতু!

মন্ত্রীর সময়ের অভাবে উদ্বোধন হচ্ছে না সেতু!

নিউজটি শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক :  উদ্বোধনের অপেক্ষায় সংযোগ সড়ক ছাড়া, দুই/তিনটি বাঁশের উপর ভর করে সেতুটি দাঁড়িয়ে আছে! পরিকল্পনা মন্ত্রীর অপেক্ষায় সেতু ও চলাচলকারীরা।উদ্বোধনের সময় বা মন্ত্রীর ফুরসতের কোনো খবর না মিললেও ব্রীজে বসানো হয়েছে নেইম ফলক। পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান সময় দিলেই ব্রীজটি উদ্বোধন হয়ে যাবে। কিন্তু ব্রীজের দু’পাশের সংযোগ সড়ক কবে হবে এলাকার লোকজন জানেন না। ব্রীজটির ঠিকাদার বলছেন বন্যার সময় নৌকা দিয়ে ব্রীজের দু’পাশের সংযোগ সড়কে মাটি ভরাট করে জন সাধারণের চলাচলের উপযোগী করা হবে।
এ ব্রীজটি যে খালের উপর নির্মাণ করা হয়েছে তা হলো রত্না খাল। রত্না খাল সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার রাণীগঞ্জ ইউনিয়নে অবস্থিত।জগন্নাথপুর উপজেলার রাণীগঞ্জ ইউনিয়নে গর্ন্ধবপুর কমলা মিয়ার বাড়ির পাশে অবস্থিত রত্না খালের উপর ব্রীজটি।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের সেতু-কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্প ২০১৭-২০১৮ আওতায় ৪০ ফুট দির্ঘ এ ব্রীজ নির্মাণ ব্যয় হয় ৩০ লাখ ৭৭ হাজার ৬৫৬ টাকা। অনেক দিন ধরে ব্রীজটি কাজ শেষ হলেও সংযোগ সড়ক না থাকায় তা এলাকাবাসীর কাজে আসছে না।

ব্রীজ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানের ঠিকাদার মুরাদ মিয়া জানান, রাণীগঞ্জ ইউনিয়নে গর্ন্ধবপুর কমলা মিয়ার বাড়ির পাশে অবস্থিত রত্না খালের উপর ব্রীজটি উদ্বোধনের দেরি আছে। উদ্বোধনের আগে সংযোগ সড়কে মাটি ভরাট করা হবে। প্রয়োজনে বন্যার সময় নৌকায় করে মাটি এনে ভরাট করা হবে।

জগন্নাথপুর উপজেলার রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. শহীদুল ইসলাম রানা বলেন, রাণীগঞ্জ ইউনিয়নে গর্ন্ধবপুর কমলা মিয়ার বাড়ির পাশে অবস্থিত রত্না খালের উপর ব্রীজটি উদ্বোধনের জন্য মন্ত্রী কোনো সময় দেননি। তিনি সময় দিলে উদ্বোধন করা হবে। তিনি, এলাকাবাসীর সাথে একমত ব্রীজটি উদ্বোধনের আগে সংযোগ সড়কে মাটি ভরাট করে জনগণের জন্য উম্মুক্ত করা হবে। ব্রীজের সংযোগ সড়কে মাটি ভরাট বিষয়টি তিনি মাসিক সমন্বয় সভায় আলাপ করবেন বলে জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ