মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:০২ অপরাহ্ন

শ্রীমঙ্গলে ৮৫ হাজার ঘনফুট বালু ২৯ লাখ টাকা বিক্রি

শ্রীমঙ্গলে ৮৫ হাজার ঘনফুট বালু ২৯ লাখ টাকা বিক্রি

নিউজটি শেয়ার করুন

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি :: শ্রীমঙ্গলে সরকারী নিলামে ডাকে জব্দকৃত ৮৫ হাজার ঘনফুট বালু বিক্রি হয়েছে ২৮ লাখ টাকায়।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদ কনফারেন্স হলে এই নিলাম ডাক অনুষ্ঠিত হয়। নিলাম কমিটির আহবায়ক সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাহিদুল আলমের পরিচালনায় ২১ জন দরদাতা প্রত্যেকে ১০ হাজার টাকা করে জামানত দিয়ে প্রকাশ্য নিলাম ডাকে অংশ নেন।

এতে শ্রীমঙ্গল উপজেলার জনৈক জলিল মাহমুদ নামে এক ব্যক্তি সর্ব্বোচ দরদাতা হিসেবে ৩৪ টাকা দরে ৮৫ হাজার ২শত ঘনফুট বালু ২৮ লাখ ৯২ হাজার (১৫ ভাগ ভ্যাট ও ৫ ভাগ আয়করসহ) টাকায় ক্রয় করেন।

স্থানীয় বালু ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, শ্রীমঙ্গল বর্তমান বাজারে প্রতি ঘনফুট বালুর সরকারী মূল্য ১ টাকা ৫০ পয়সা যা পরিবহনসহ দেড়শ ঘনফুটের এক ট্রাক বালুর ক্রয়মূল্য ১ হাজার ৬শ’ থেকে ১ হাজার ৮শ’ টাকা এবং বিক্রয় মূল্য ২ হাজার থেকে ২ হাজার ৪ শ’ টাকা। কিন্তু নিলামে ৩৪ টাকা ঘনফুট দরে ক্রয় করা পরিবহনসহ প্রতি ট্রাক বালুর মূল্য দাঁড়াবে ৬ হাজার টাকা। যা শ্রীমঙ্গলের ইতিহাসে সর্ব্বোচ দরে বালু ক্রয়ের রেকর্ড।

এনিয়ে বালু ব্যাবসায়ীদের মধ্যে চাঞ্চল্যর সৃষ্টি হয়েছে।

গত ২৮ মে বুধবার শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে দিনব্যাব্যাপী উপজেলার ভূনবীর ইউনিয়নে ইউপি চেয়ারম্যান চেরাগ আলীর ৩টি বালুমহালসহ বিভিন্ন অবৈধ বালু মহালে অভিযান পরিচালিত হয়।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. শাহিদুল আলম, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেল) আশরাফুজ্জামান ও থানা পুলিশ ফোর্স অভিযানে অংশ নেন।

অভিযান চলাকালে উপজেলার ভূনবীর ইউপির ইছামতি চা বাগান এলাকা থেকে অবৈধভাবে গভীরে গর্ত করে মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলন করার কাজে ব্যবহৃত ইউপি চেয়ারম্যান চেরাগ আলীর মালিকানাধীন ৪টি শ্যালো মেশিন, পাইপ ও বালু জব্দ করে সাতগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান মিলন শীলের কাছে জিম্মা দেয়া হয়। পরে একই ইউপির জৈতা ছড়ার শাসন, ইসলামপাড়া ও ভূনবীর গ্রামের মুসাব্বির মিয়া, কবির মোল্লা, কদর আলী, আসলম মিয়া, ঠান্ডা মিয়া, জলিল মিয়া ও হাওর মেম্বারের মালিকানাধীন অবৈধ বালু মহাল থেকে (মোট ৬টি স্থান থেকে) বিপুল পরিমান বালু জব্দ করে স্থানীয় জন প্রতিনিধিদের জিম্মায় রাখা হয়।

এদিকে গত ১লা জুন সন্ধ্যার পর প্রশাসনের জব্দকৃত বালু পাচারকালে উপজেলার ভূনবীর চৌমুহনা এলাকা থেকে ইউএনওর নির্দেশে স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর একটি ট্রাক জব্দ করে থানা পুলিশ। পরে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক আদালত বসিয়ে চেয়ারম্যান চেরাগ আলীর কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে।

গত ১ জুন শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর কার্যালয় থেকে ৪ জুন বেলা ১২টায় জব্দকৃত বালুর প্রকাশ্য নিলাম বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলাম জানিয়েছেন, নিলাম ডাকের শর্ত অনুযায়ী আগামাী ১০ দিনের মধ্যে যেখানে যে অবস্থায় আছে সেখান থেকে বালু অপসারণ করে নিতে হবে এবং বালু অপসারণের কাজে ৩ টনের বেশী ভারী যানবাহন ব্যবহার না করার নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ