বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:৪৬ পূর্বাহ্ন

সিলেটে একদিনে ৯০ হাজার পর্যটক, হোটেল-মোটেলে হচ্ছে না সংকুলান

সিলেটে একদিনে ৯০ হাজার পর্যটক, হোটেল-মোটেলে হচ্ছে না সংকুলান

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত সিলেট: তিনদিনের ছুটি পেয়ে সবাই এখন সিলেটে, কিন্তু থাকবেন কোথায়? এরকম বিপাকে পড়েছেন কয়েক হাজার পর্যটক।

সিলেটের হোটেল ব্যবসায়ী, পর্যটন সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সিলেটে অন্তত ৯০ হাজার পর্যটক এসেছেন; যারা নগর ও নগরের বাইরে হোটেল-মোটেলে উঠেছেন। কিন্তু, যারা আগে হোটেল বুকিং দেননি তারা পড়েছেন বিপাকে।

জানা গেছে, ভাষা দিবস ও সাপ্তাহিক ছুটি মিলিয়ে পাওয়া তিনদিনের ছুটিকে কাজে লাগিয়ে সিলেটে বেড়াতে এসেছেন হাজারো ভ্রমণ পিপাসুরা। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টা থেকে জাফলং ও বিছনাকন্দিগামী গাড়ির লাইন দীর্ঘ হতে থাকে। এমনকি শহরের বাইরে বিভিন্ন জায়গায় যানজট দেখা দেয়।

পরিবার পরিজন ছাড়াও বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি চাকুরীজীবি, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, বিচারক পর্যায়ের পর্যটক দলবদ্ধভাবে সিলেটে ঘুরতে এসেছেন।

দেশের বিভিন্ন প্রান্তের পর্যটকের পাশাপাশি মাতৃভাষা দিবসের ছুটির সঙ্গে সাপ্তাহিক ছুটি মিলিয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে ঘুরতে আসছেন স্থানীয়রাও।

তবে সিলেটে হোটেল নিয়ে বিপাকে পড়েছেন পর্যটকরা। হোটেলের সামনে সিট খালি নেই বলে নোটিশ সাঁটানো। পর্যটকরা হোটেল বা বিভিন্ন ভবনের সামনে বসে আছেন। স্বজন নিয়ে কোথায় উঠবেন অনেক পর্যটকই হিসেব মেলাতে পারছেন না। সব মিলিয়ে চরম ভোগান্তিতে সিলেটে পর্যটকরা।

হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার, হযরত শাহ পরান (রহ.) মাজার, জাফলং, মাধবকুন্ড, লালাখাল, বিছনাকান্দি, পান্তুমাই, ভোলাগঞ্জ জিরো লাইন, রাতারগুল, চা বাগান, সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর দৃষ্টিনন্দন শিমুল ফুলের বাগান দেখতে দেশের ও দেশের বাহিরের অনেক পর্যটকরা সিলেটে আসেন। পর্যটকেরা সিলেটে বেড়াতে এসে থাকতে হয় আবাসিক হোটেলে। প্রতি বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার সিলেটে পর্যটকদের ভীড় লেগে থাকে। আর একইসাথে যদি তিনদিন বা তার বেশি সরকারি ছুটি থাকে তাহলে হোটেলে সিট পাওয়া যায় না। বৃহস্পতিবারসহ (২২ ও ২৩ ফেব্রুয়ারি) সরকারী ছুটি থাকায় সিলেটের পর্যটন কেন্দ্র গুলো পরিদর্শনে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ছুটে এসেছেন পর্যটকেরা। সিলেটে এসে পর্যটকরা হোটেলে থাকা নিয়ে ভোগান্তিতে পড়েছেন।

বৃহস্পতিবার নগরীর দরগাহ এলাকায় দেখা যায় হোটেলে সিট না পেয়ে পর্যটকরা হোটেল বা বিভিন্ন ভবনের সামনে বসে আছেন। নগরীর কোথাও কোনো হোটেলে সিট নেই।

হযরত শাহজালাল (র: ) মাজার দরগাহ রোড আলমাস হোটেল, হোটেল আল-আরব, হোটেল উর্মি, হোটেল অনুপম, আল জালাল, আকসা, ময়রুন নেছা, আল আমিন, হোটেল জিয়া, হোটেল কোরেইশী, হোটেল ইয়ামেন, তালতলা এলাকার হোটেল ইস্ট ইন, হোটেল ব্রিটেনিয়া, হোটেল সুফিয়া, হোটেল গুলসানসহ বেশ কয়েকটি হোটেলে গিয়ে দেখা যায় হোটেলের সামনে সিট খালি নেই নোটিশ সাঁটানো।

নগরীর প্রতিটি হোটেল বোর্ডারে পরিপূর্ণ থাকায় মঙ্গলবার রাতে নগরীর কোনো হোটেলেই সিট পাননি দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা লোকজন।

দরগাহ রোড হোটেল অনুপম এর পরিচালক মুফতি মইন উদ্দিন বলেন, প্রতি বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার সিলেটে পর্যটকদের ভীড় থাকে। সরকারি ছুটি একইসাথে যদি তিনদিন বা তার বেশি থাকে তাহলে হোটেলে সিট পাওয়া যায় না। তবে আজ একটু বেশি পর্যটক দেখা যাচ্ছে। পর্যটকরা হোটেলে থাকা নিয়ে ভোগান্তিতে পড়েছেন। সিলেটের বেশিরভাগ আবাসিক হোটেল ১০০ সিটের মধ্যে তাই পর্যটক বেশি হলে সিট পাওয়া যায় না।

হোটেলে সিট না পেয়ে দরগাহ গেইট এলাকার একটি ভবনের নিচে মা, বোন, মেয়ে আত্মীয় স্বজন নিয়ে বসে আছেন চট্টগ্রাম থেকে আসা সাহিদুল ইসলাম। তিনি জানান, সরকারি ছুটিতে পরিবারের ৬জন নিয়ে সিলেট মাজারসহ অন্যান্য জায়গা দেখতে এসেছেন। হোটেলে সিট না পেয়ে সমস্যায় আছেন।

ঢাকা থেকে স্বস্ত্রীক সিলেটে এসেছেন ব্যাংক কর্মকর্তা ইশতিয়াক আজাদ। হোটেলে রুম না পেয়ে উঠেছেন স্থানীয় পরিচিত একজনের একটি বাসায়। এভাবে কেউ উঠেছেন বন্ধুর বাসায়, কেউ আত্মীয়ের বাসায়। আবার অনেকে হোটেল না পেয়ে আশ্রয় নিয়েছেন মাজারে, মসজিদ অঙ্গিনায়।

সিলেট টুরিজম ক্লাবের সভাপতি হুমায়ূন কবির লিটন বলেন, গত তিনদিন আগে থেকেই সিলেটের হোটেলগুলোতে বুকিং নেওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। এখন আমাদের পরিচিত যারা সিলেটে এসেছেন তাদের জায়গা দিতে না পেরে আমরা খুব কষ্টে আছি। সিলেটে অতীতে এতো পর্যটক আমরা দেখিনি।

সিলেট চেম্বারের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ বলেন, সিলেটের হোটেলগুলোতে একটি কক্ষও খালি নেই। আমাদের কাছে অনেকে আবাসিক হোটেল, রিসোর্ট কক্ষ চাহিদা দিচ্ছেন। আমরা পারছি না। কেথাও দুইজনের থাকার কক্ষে ৪জন থাকতে হচ্ছে। সিলেটে এবার যত পর্যটক এসেছেন তা অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে বলে জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ