রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ১২:০৫ পূর্বাহ্ন

সিলেটে এগিয়ে থেকেও অপেক্ষায় আরিফ

সিলেটে এগিয়ে থেকেও অপেক্ষায় আরিফ

নিউজটি শেয়ার করুন

নন্দিত সিলেট:: সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে স্থগিত করা হয়েছে দুটি কেন্দ্রর ভোট গ্রহণ। এই দুই কেন্দ্রে পুনরায় ভোটগ্রহণ করা হবে কি না সে বিষয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার সিদ্ধান্ত নিবেন বলে জানিয়েছেন সিসিক নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আলীমুজ্জামান। তাই ১৩২ টি কেন্দ্রে এগিয়ে থেকেও অপেক্ষা করতে হবে আরিফুল হককে।

আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস থেকে প্রকাশিত ১৩২টি কেন্দ্রের মধ্যে আরিফুল হক চৌধুরী পেয়েছেন ৯০ হাজার ৪৯৬ ভোট এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান পেয়েছেন ৮৫ হাজার ৮৭০ ভোট।

সেই হিসেবে আরিফুল হক চৌধুরী সিসিক নির্বাচনে ১৩২টি কেন্দ্রে ৪ হাজার ৬২৬ ভোটে এগিয়ে রয়েছেন। অপরদিকে স্থগিত হওয়া ২টি কেন্দ্রের মোট ভোটার ৪ হাজার ৭৮৭। নির্বাচনী এই হিসেবে বিজয় নিশ্চিত করার জন্য ১৬১টি ভোট প্রয়োজন ছিল আরিফের।

ঠিক এই অবস্থায় সিসিক নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আলীমুজ্জামান জানিয়েছেন, যেহেতু আরিফ ৪হাজার ৬২৬টি ভোটে এগিয়ে আছেন এবং স্থগিত দুই কেন্দ্রের ভোটারের ব্যবধান এই সংখ্যার কাছাকাছি সেহেতু এই দুই কেন্দ্রে নতুন করে ভোট গ্রহণ হবে কি না এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার।

তিনি জানান, স্থগিত দুই কেন্দ্রের ভোটের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য মঙ্গলবার (৩১ জুলাই) প্রধান নির্বাচন কমিশন বরাবর চিঠি প্রেরণ করা হবে। তিনিই ঠিক করবেন নতুন করে ভোট হবে নাকি আরিফুল হক চৌধুরীকে বিজয়ী ঘোষণা করা হবে।

সোমবার (৩০ জুলাই) সকাল ৮টা থেকে ৪টা পর্যন্ত নির্বাচন সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন হয়েছে বলে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান দাবি করেছিলেন। কিন্তু ভোটের ফলাফল প্রকাশের এক পর্যায়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর ভোটের ফলাফল ঘোষণা স্থগিতের আবেদন করেন।

আবেদনে তিনি বলেন, স্থানীয়ভাবে আওয়ামী লীগের এজেন্টদের মাধ্যমে প্রাপ্ত ফলাফলের সাথে নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত ফলাফলে ১০-১৫ হাজার ভোটের ব্যবধান রয়েছে। তাই ফলাফল ঘোষণা বন্ধ রেখে পুনঃগণনার করার অবেদন করা হয়েছে।

অপরদিকে দিনভর বিএনপি মনোনীত প্রার্থী জাল ভোট এবং কেন্দ্র দখলের অভিযোগ করেছিলেন ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে।

সব ঘটনার পর এখন নগরবাসীর চোখ প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দিকেই। তার উপরই নির্ভর করছে স্থগিত ভোট কেন্দ্রে আবার ভোট গ্রহণ করা হবে কিনা।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ