বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১২:৫৩ পূর্বাহ্ন

সুনামগঞ্জে বিনামূল্য কৃষি উপকরণ সরবরাহ ও বিনাসুদে ঋণ প্রদানের দাবি

সুনামগঞ্জে বিনামূল্য কৃষি উপকরণ সরবরাহ ও বিনাসুদে ঋণ প্রদানের দাবি

নিউজটি শেয়ার করুন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :কৃষকদের বিনামূল্যে সার, বীজ, কীটনাশকসহ যাবতীয় কৃষি উপকরণ সরবরাহ ও বিনাসুদে কৃষিঋণ প্রদান, সঠিকভাবে কাজ সম্পাদনকারি পিআইসিদের চুড়ান্ত বিল পরিশোধ এবং প্রকৃত বোরো চাষীদের তালিকা প্রণয়নের দাবিতে সুনামগঞ্জে সংবাদ সম্মলন করেছে হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন। গতকাল শনিবার দুপুর ১২ টায় স্থানীয় জগৎজ্যোতি পাঠাগার মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বিজন সেন রায়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি অ্যাডভোকেট বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু, উপদেষ্টা রনেন্দ্র তাূকদার মিন্ট, সহ-সভাপতি চিত্ত রঞ্জন তালুকদার, সংগঠনের নেতা অধ্যক্ষ রবিউল ইসলাম, ইয়াকুব বখত বহলুল, ডা. মোর্শেদ আলম, সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সালেহীন চৌধুরী শুভ, সাংগঠনিক সম্পাদক এমরানুল হক চৌধুরী, একে কুদরত পাশা প্রমুখ।

লিখিত বক্তব্যে বিজন সেন রায় উল্লেখ করেন, ২০১৭ সালে সুনামগঞ্জ জেলার সবকটি উপজেলার হাওরের ফসলরক্ষা বাধ ভেঙ্গে অকাল বন্যায় কৃষকরা শতভাগ কাচা ফসল তলিয়ে যায়। এতে জেলার কৃষককূলের অর্থনৈতিক মেরুদন্ড একেবারে ভেঙ্গে যায়। পরবর্তীতে ২০১৮ ও ২০১৯ সালে কৃষকরা পর্যাপ্ত ফসল উৎপাদন করলেও ধানের ন্যায্য মূল্য না পাওয়ায় ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছে।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো উল্লেখ করেন,আগামীতে বোরো মৌসুমে জেলার ১১টি উপজেলায় সোয়া দুই লাখ হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষাবাদ করার সামর্থ্য এ জেলার কৃষকদের নেই। তাই দেশের স্বার্থে এজেলার কৃষকদের বিনামূলে সার,বীজ, কীটনাশক৷ কৃষি উপকরণ সরবরাহ ও বিনাসুদে কৃষিঋণ প্রদান করা হলে কৃষকরা ফসল ফলিয়ে দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখবে।

লিখিত বক্তব্যে আরো উল্লেখ করা হয়, সরকার এজেলায় ১ লাখ ১৫ হাজর কৃষককে কৃষি কার্ড দিয়েছে। এতে বড় অংশ অকৃষকরা ডুকে পরেছে। অবিলম্বে প্রকৃত কৃষকদের কৃষি কার্ডের আওতায় আনার দাবি জানান।

লিখিত বক্তব্যে আরো উল্লেখ করা হয়, জেলা ওয়ারি ধান ও চাল ক্রয়ের যে চাহিদাপত্র করা হয়, ওই চাহিদা পত্রে যে জেলাগুলোতে বোরো ধান চাষ হয় না সে জেলাগুলোকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এ কারনে বোরো প্রধান জেলাগুলো কৃষকরা সরকারিভাবে ধান কম বিক্রি করতে পারেন। কেবলমাত্র বোরো প্রধান জেলাগুলো থেকে সরকারিভাবে ধান কেনা হলে সুনামগঞ্জের কৃষকদের কাছ থেকে আরো দশগুণ ধান সরকার ক্রয় করতেপারতো।

সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়, গত মৌসুমে জেলার হাওরের ফসলরক্ষা বাধে কাজে সরকার ৫৭২ টি প্রকল্পে প্রায় ৮০ কোটি টাকা ব্যয় করেছে। কিন্তু ৬ মাস পররিয়ে গেলে প্রকল্পগুলো শেষ কিস্তির টাকা পরিশোধ করেনি পাউবো। এ টাকা পরিশোধ না করলে আগামীতে বাধের কাজ করতে অনিহা প্রকাশ করবে প্রকল্প বাস্তবায়ণ কমিটি( পিআইসি)। অবিলম্বে খাদ্য স্বয়ং সম্পুর্ণতার স্বার্থে পদক্ষেপ নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানায় হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ