শুক্রবার, ২৩ অগাস্ট ২০১৯, ০৮:১৭ অপরাহ্ন

সুনামগঞ্জে ৪ নারীকে শ্লীলতাহানি: ৭ বখাটেকে পুলিশে সোপর্দ

সুনামগঞ্জে ৪ নারীকে শ্লীলতাহানি: ৭ বখাটেকে পুলিশে সোপর্দ

নিউজটি শেয়ার করুন

 সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জে মেলা থেকে বাড়ি ফেরার পথে ৪নারীকে শ্লীলতাহানির ঘটনায় জড়িত ৭ বখাটে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয়রা।

রোববার (৮এপ্রিল) রাত ৮টায় সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার কাঠইর এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হল, দক্ষিণ সুনামগঞ্জের ধনপুর গ্রামের রায়হান উদ্দিন, ফয়েজ উদ্দিন, শাহিনুর, সুমন আহমদ, গোলাম কিবরিয়া, আজহার উদ্দিন ও সদর উপজেলার সরদারপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, রোববার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার কাঠইর ইউনিয়নের উলুতুলু গ্রামের জনৈক বাসিন্দা (২৪) তার স্ত্রী, বোনসহ কয়েকজন সুনামগঞ্জ শহরের বাণিজ্য মেলা থেকে কেনাকাটা শেষে অটোরিক্সা যোগে বাড়ি ফেরার পথে সদর উপজেলার কাঠইর এলাকা থেকে দেলোয়ার এবং ৭ বখাটে আরেকটি অটোরিক্সায় তাদের পিছু নিয়ে উত্ত্যক্ত করতে শুরু করে। কিছু দূর যাওয়ার পর একবার অটোরিক্সা থামিয়ে নারী ও স্কুল শিক্ষার্থীদের অশ্লীল ভাষায় উত্ত্যক্ত করে।

এর প্রতিবাদ করেন অটোরিক্সায় থাকা ঐ অভিভাবক। পরে বাড়ির পথে তারা রওয়ানা দিলে আবারও তাদের পিছু নেয় বখাটেরা। কিছু দূর যাবার পর বখাটেরা অটোরিক্সা থামিয়ে এক নারীর শরীরে হাত দেয় ও এক স্কুল পড়ুয়া তরুণীদের ওড়না ধরে টানাটানি শুরু করে।

এসময় অভিভাবক প্রতিবাদ করলে তাকেও মারধর করে বখাটেরা। বখাটেদের হাত থেকে বাঁচতে গিয়ে আহত হন অটোরিক্সায় থাকা অভিভাবকের বোনও।

আশেপাশের লোকজন বিষয়টি প্রত্যক্ষ করে তাৎক্ষণিক ৭ বখাটেকে আটক করে। পরে খবর পেয়ে সদর থানার এসআই আলমগীর তাদের আটক করে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় নিয়ে আসেন।

থানায় নিয়ে আসার পর সেখানে আসেন সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ মো. হাবিব উল্লাহ জুয়েল। তিনি নির্যাতিত পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন এবং বখাটেদের বিরুদ্ধে তাদের অবস্থান জানান।

নারী ও তরুণীদের অভিভাবক (২৪) বলেন, বাড়ি ফেরার পথে অটোরিক্সা নিয়ে বখাটেরা আমার স্ত্রী, বোনদের নানাভাবে উত্ত্যক্ত করতে থাকে। প্রতিবাদ করলে তারা আমাকে মারধর করে বলে, ‘বেশি কথা বললে তোর মাথা কেটে নিয়ে যাব, তোর সঙ্গে থাকা মহিলাদের … (লেখার অযোগ্য)।’ প্রথমে ভয়ে কিছু বলেনি, পরে স্থানীয় মানুষজন তাদের আটক করে পুলিশে দেয়।

সদর থানার ওসি মোহাম্মদ শহিদুল্লাহ জানান, বখাটেপনার খবর পেয়ে পুলিশ তাদের আটক করেছে। তাদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. হাবিব উল্লাহ জুয়েল বলেন, যেখানেই নারী ও শিশু নির্যাতন হচ্ছে, ঘটনার জড়িতদের গ্রেফতার করছে পুলিশ। বখাটেপনার বিষয়ে পুলিশ কঠোর অবস্থানে আছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ